Tag Archives: সাকিব আল হাসান

সাকিব আল হাসানকে সতর্ক করল নির্বাচন কমিশন

ডেস্ক রিপোর্ট:

আচরণবিধি লঙ্ঘনের দায়ে তারকা ক্রিকেটার ও মাগুরা-১ আসনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী সাকিব আল হাসানকে সতর্ক করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।

সোমবার ইসির উপসচিব আতিয়ার রহমান স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে এ তথ্য জানানো হয়। এছাড়া বিএনএমের প্রার্থী এস এম নেওয়াজ মোর্শেদকেও সতর্ক করেছে নির্বাচন কমিশন।

চিঠিতে বলা হয়, মাগুরা-১ আসনের আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী সাকিব আল হাসান বিগত ২৯ নভেম্বর ঢাকা থেকে মাগুরায় আগমনের সময় কামারখালী এলাকা থেকে শোডাউন করে গাড়িবহর নিয়ে মাগুরা শহরে প্রবেশ করেন এবং নাগরিক সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে যোগদান করায় জনগণের চলাচলের প্রতিবন্ধকতার সৃষ্টি হয়। এটি সংসদ নির্বাচনে রাজনৈতিক দল ও প্রার্থীর আচরণ বিধিমালার লঙ্ঘন।

অপরদিকে খুলনা-৬ আসনের বি এন এম মনোনীত প্রার্থী এস এম নেওয়াজ মোর্শেদ শতাধিক মোটরবাইক ও সহস্রাধিক লোকজনসহ কয়রা বাজারে মিছিল সহযোগে শোডাউন করে জনসাধারণের চলাচলে বিঘ্ন সৃষ্টি করেন। এতে সংসদ নির্বাচনে রাজনৈতিক দল ও প্রার্থীর আচরণ বিধিমালা, ২০০৮ এর বিধান লঙ্ঘন করা হয়েছে।

তিন ফরম্যাটেই অধিনায়ক থাকছেন সাকিব আল হাসান

ডেস্ক রিপোর্ট:

বিশ্বকাপের উদ্দেশে দেশ ছাড়ার আগে সাকিব আল হাসান জানিয়েছিলেন, আসর শেষে তিনি আর অধিনায়কত্ব করবেন না। তবে আনুষ্ঠানিকভাবে এখনো বিসিবিকে কিছু বলেননি তিনি। যে কারণে বিসিবি বলছে এখনও সব ফরম্যাটের অধিনায়ক সাকিবই।

আজ মিরপুরে গণমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে বিসিবির ক্রিকেট অপরারেশন্স বিভাগের চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস বলেন, ‘এখানে আবার বিবেচনার পার্টটা আসে না। এখনও সে আমাদের অধিনায়ক। এখন আমরা শান্তকেই দিয়েছি। শান্তকে আমরা বলেছি যে সামনে দুইটা সিরিজ আছে। যেটা নিউজিল্যান্ড সিরিজ সেই সিরিজের জন্যই তাকে আমরা অধিনায়কত্ব দিয়েছি। ইমপ্যাক্ট সাকিবকে একটা লম্বা সময়ের জন্যই অধিনায়ক দেওয়া হয়েছে আপনারা জানেন। লং টাইমের মধ্যে সে এখনো আমাদের অধিনায়ক, সব ফরম্যাটের।’

‘আমরা ধরে নিচ্ছি সাকিবই অধিনায়ক। তো এখন সামনের ফরম্যাটগুলোই সে অধিনায়ক থাকবে কি থাকবে না এরকম প্রশ্ন কিন্তু এখনো উঠেনি। আমরা জানি সে এখনো অধিনায়ক। আমরা চাই বাকিগুলোই সে অধিনায়ক থাকুক।’-যোগ করেন জালাল।

সাকিব সবসময় খেলবে না, যে কারণে আরো দুইজন অধিনায়ক প্রস্তুত রাখা হচ্ছে। জালাল বলেন, ‘একটা সময় আসবে অবশ্যই সাকিব আর খেলা চালিয়ে যাবে না। হয়ত কোনো ফরম্যাট কমিয়ে দিবে। আমাদের হাতে শান্ত আছে, আমরা যাদের সম্ভাব্য অধিনায়ক বলি শান্ত আছে, মিরাজ আছে। আমাদের কাছে মনে হয়, বোর্ডের কাছে মনে হয় বাংলাদেশকে সামনে থেকে লিড করার মতো সক্ষমতা তাদের দুজনেরই আছে।’

সাকিব আল হাসানের নির্বাচনী প্রচারণায় ব্যস্ত ক্রিকেটাররাও

ডেস্ক রিপোর্ট:

ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান এখন ব্যস্ত সময় পার করছেন নির্বাচনী প্রচারণায়। আর তার এই প্রচারণায় যুক্ত হয়েছেন জাতীয় দলের বেশ কয়েকজন সতীর্থ। বিশেষ করে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিতে দেখা যাচ্ছে ক্রিকেটার রনি তালুকদারকে। এ ছাড়া সরাসরি যুক্ত হতে দেখা গেছে মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত ও নাজমুল হোসেন অপুকেও।

ক্রীড়াবিদদের খেলার মাঠ থেকে রাজনীতির অঙ্গনে পদার্পণ নতুন কিছু নয়। অধিকাংশ ক্ষেত্রেই অবসর নেওয়ার পর অনেকে পুরোদস্তুর রাজনীতিবিদ হন। তবে সাম্প্রতিক সময়ে এর ব্যতিক্রমও হয়েছে। বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক মাশরাফি বিন মতুর্জা জাতীয় দলে খেলা অবস্থাতেই সংসদ সদস্য হয়েছিলেন। মাশরাফির পর বর্তমান অধিনায়ক সাকিব আল হাসানও সেই পথেই হাঁটছেন।

দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনে মাগুরা- ১ আসন থেকে নৌকা প্রতীকে লড়তে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়েছেন সাকিব। এর পরপরই ফেসবুকে পোস্টের মাধ্যমে সাকিবকে শুভকামনা জানাতে দেখা গেছে অনেককে। এ তালিকায় আছেন মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন ও মাশরাফি বিন মুর্তজাকে। আজ নিজ জন্মভূমি মাগুরায় পা রাখছেন সাকিব। সঙ্গী হিসেবে তার সফরে রয়েছেন অপু, রনি, মোসাদ্দেকরাও।

এর আগে সাকিব মনোনয়ন পাওয়ায় উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেন রনি তালুকদার। জাতীয় দলের সতীর্থকে এই সুযোগ দেওয়ায় আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন এই ক্রিকেটার। সাকিবকে নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন রনি।

তিনি লিখেছেন, ‘আসন্ন দ্বাদশ জাতীয় নির্বাচনে মাগুরা-১ আসন থেকে বাংলাদের প্রাণ সাকিব আল হাসান ভাইকে সংসদ সদস্য হিসেবে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ হতে মনোনীত করায় এই দেশের উন্নয়নের রুপকার জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য কন্যা আমাদের প্রানপ্রিয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি রইলো অসংখ্য ধন্যবাদ এবং ভালবাসা।’

সাকিব আল হাসানকে নিয়ে মাশরাফির স্ট্যাটাস

ডেস্ক রিপোর্ট:

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের জন্য নিজেদের প্রার্থী ঘোষণা করল ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। একাধিক চমক যেমন ছিল, তেমন ছিল প্রত্যাশিত কিছু নাম।

বাংলাদেশের ক্রিকেট দলের অধিনায়ক সাকিব আল হাসানের নামটা যেমন প্রত্যাশিত ছিল, তেমন এই নাম জন্ম দিয়েছে বেশ কিছু আলোচনার।

ক্রিকেটে এখনো তার ওপর অনেকটা নির্ভরশীল বাংলাদেশ। এমন অবস্থায় তার মনোনয়ন নিয়ে স্বাভাবিকভাবেই আলোচনা শুরু হয়েছে।

একই দিনে আরও একবার নৌকার টিকিট পেয়েছেন টাইগারদের সাবেক ক্যাপ্টেন মাশরাফি বিন মুর্তজা। দীর্ঘদিন জাতীয় দলে একে অন্যের সতীর্থ ছিলেন।

এবার রাজনীতির মাঠেও একে অন্যের সঙ্গী হলেন দুজনে। এমন দিনে নিজের সতীর্থ সাকিবকে শুভকামনা জানাতে ভুল করেননি ম্যাশ। নিজের ফেসবুকে সাকিবের ছবি দিয়ে মাশরাফি লিখেছেন— ‘ক্রিকেটের মতোই বিশাল হোক তোর এই পথচলা…। শুভকামনা নেতা…।’

বিগত ১৭ বছর ধরে বাংলাদেশের ক্রিকেটে পোস্টারবয় হয়ে থাকা সাকিবকে আজকের পর থেকে দেখা যাবে রাজনীতির মাঠে। বাংলাদেশের আসন্ন দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন পেয়েছেন টাইগার অধিনায়ক। নিজের জন্মস্থান মাগুরা-১ আসনে নির্বাচনে লড়বেন সাকিব আল হাসান।

রোববার বিকালে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয় থেকে নৌকার এ প্রার্থীর নাম ঘোষণা করেন দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

গত ১৮ নভেম্বর দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নিতে তিনটি আসনের জন্য আওয়ামী লীগের মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছিলেন ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান।

আসনগুলো হলো— ঢাকা- ১০, মাগুরা- ১ ও ২। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় আওয়ামী লীগের সভাপতির ধানমন্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ে দলের দপ্তর সম্পাদকের কক্ষে ওবায়দুল কাদেরের সঙ্গে বৈঠক করেন সাকিব। প্রায় আধাঘণ্টা ধরে চলে এ বৈঠক।

পিএসএল ড্রাফটের সর্বোচ্চ ক্যাটাগরিতে সাকিব আল হাসান

ডেস্ক রিপোর্ট:

পাকিস্তান সুপার লিগের (পিএসএল) পরবর্তী আসরের খেলোয়াড়দের নিলাম হতে পারে আগামী ১৪ ডিসেম্বর। তার আগে অবশ্য ড্রাফটে নাম দেওয়া ক্রিকেটারদের তালিকা প্রকাশ করেছে পিএসএল কর্তৃপক্ষ। যেখানে সবচেয়ে দামি প্লাটিনাম ক্যাটাগরিতে আছেন বাংলাদেশি অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান।

ড্রাফটে ছয় ক্যাটাগরিতে ৪৯৩ বিদেশি খেলোয়াড়কে রাখা হয়েছে। বাংলাদেশি খেলোয়াড় আছেন ২৮ জন। সবচেয়ে দামি প্লাটিনাম ক্যাটাগরিতে বাংলাদেশ থেকে আছেন একমাত্র সাকিবই।

অর্থাৎ কোনো ফ্র্যাঞ্চাইজি ৩৬ বছর বয়সি অলরাউন্ডারকে কিনতে চাইলে কমপক্ষে ১ লাখ ৩০ হাজার মার্কিন ডলার দিতে হবে, যা বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় দেড় কোটি টাকা।

ডায়মন্ড ক্যাটাগরিতে আছেন তামিম ইকবাল, মাহমুদউল্লাহ, মুশফিকুর রহিম, মেহেদী হাসান মিরাজ ও তাসকিন আহমেদ। তাদের ভিত্তিমূল্য ধরা হয়েছে ৬০ হাজার ডলার (প্রায় ৬৬ লাখ টাকা)।

অন্য চার ক্যাটাগরি গোল্ড, সিলভার, ইমার্জিং ও সাপ্লিমেন্টারিতে বাংলাদেশের কারা আছেন, সেই তালিকা প্রকাশ করা হয়নি।

এর আগেও তিন মৌসুম পিএসএলে খেলেছেন সাকিব। ২০১৬ সালে টুর্নামেন্টের প্রথম মৌসুমে খেলেছেন করাচি কিংসের হয়ে। ২০১৭ এবং এ বছর ছিলেন পেশোয়ার জালমিতে। গত ফেব্রুয়ারিতে বিপিএলে তার দল ফরচুন বরিশাল এলিমিনেটর থেকে বাদ পড়লে ‘রিজার্ভ সাপ্লিমেন্টারি পিক’ হিসেবে পেশোয়ারে নাম লেখান। কিন্তু দলটির হয়ে এক ম্যাচ খেলেই পারিবারিক কারণে যুক্তরাষ্ট্রে চলে যান সাকিব।

বরাবরের মতো এবারও পিএসএলের সূচি বিপিএলের সঙ্গে সাংঘর্ষিক। পিএসএল শুরু হবে আগামী ১৩ ফেব্রুয়ারি, বিপিএল শেষ হবে ১৯ ফেব্রুয়ারি। পুরোপুরি সেরে উঠলে এবারের বিপিএলে সাকিব খেলবেন রংপুর রাইডার্সের হয়ে। রংপুর প্লে–অফে উঠলে স্বাভাবিকভাবেই পিএসএলের শুরুর দিকে খেলতে পারবেন না।

আবার বিপিএল শেষেই ঘরের মাঠে শ্রীলংকার বিপক্ষে দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজ আছে বাংলাদেশের। সিরিজটি আইসিসি বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপের অংশ হওয়ায় লংকানদের বিপক্ষে সাকিবের খেলার সম্ভাবনা বেশি। সে ক্ষেত্রে মার্চের আগে হয়তো তাকে পিএসএলে দেখা যাবে না।

আওয়ামী লীগের মনোনয়ন ফরম কিনলেন সাকিব আল হাসান

ডেস্ক রিপোর্ট:

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নিতে তিনটি আসনের জন্য আওয়ামী লীগের মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান। আসনগুলো হলো— ঢাকা-১০, মাগুরা-১ ও ২।

শনিবার (১৮ নভেম্বর) ২৩ বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউর আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয় থেকে সাকিব আল হাসানের পক্ষে স্বজনরা ফরমগুলো সংগ্রহ করেন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি সিদ্দিকী নাজমুল আলম।

এদিকে দ্বাদশ জাতীয় নির্বাচনের জন্য আওয়ামী লীগ প্রথম দিনেই ১০৬৪টি মনোনয়ন ফরম বিক্রি করেছে। এর মধ্যে সরাসরি ১০৫০ জন, আর অনলাইনে ১৪ জন মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া।

তিনি জানান, প্রথম দিনে ঢাকা বিভাগে ২১৩টি, চট্টগ্রাম বিভাগে ১৯৮টি, সিলেট বিভাগ ৫৫টি, ময়মনসিংহ বিভাগ ১০৫টি, বরিশাল বিভাগে ৭৫টি, খুলনা বিভাগে ১২৫টি, রংপুর বিভাগে ১০৯টি ও রাজশাহী বিভাগে ১৬৯টি দলীয় মনোনয়ন ফরম বিক্রি করেছে আওয়ামী লীগ। ফরম বিক্রি থেকে আয় হয়েছে ৫ কোটি ৩২ লাখ টাকা।

এর আগে শনিবার সকালে বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে দলটির কার্যালয়ে মনোনয়ন ফরম বিক্রির কার্যক্রম শুরু হয়। প্রথম ফরম সংগ্রহ করেন আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। গোপালগঞ্জের আওয়ামী লীগ নেতারা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্য গোপালগঞ্জ-৩ আসনের মনোনয়ন ফরম কেনেন। সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের দলীয় মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেন দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া।

অধিনায়কত্ব ছাড়তে চাচ্ছেন সাকিব আল হাসান!

অধিনায়কত্ব ছাড়তে চাচ্ছেন সাকিব আল হাসান!

ডেস্ক রিপোর্ট:

বিশ্বকাপ খেলতে একদিন পরই উড়াল দিতে হবে ভারতের উদ্দেশ্যে। অথচ এর আগে নানা গুঞ্জন ছড়িয়ে পড়েছে চারদিকে।

শুরুতে সেটি ছিল তামিম ইকবালের খেলা বা না খেলা নিয়ে। এই উদ্বোধনী ব্যাটার পাঁচ ম্যাচ খেলতে চান, এমন খবর ছড়ালেও বিষয়টি ছিল ভিন্ন। দীর্ঘদিন পর নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে দ্বিতীয় ওয়ানডেতে ব্যাট করে পিঠে অস্বস্তি বোধ করার কথা জানান তিনি।

সেটিই পরে নির্বাচকদের কাছে জানিয়েছেন বিসিবি সভাপতি। যাতে অস্বস্তিতে পড়েছে নির্বাচক প্যানেলও। এখন আবার নতুন আলোচনা তৈরি হয়েছে সাকিব আল হাসানকে নিয়ে। জানা যায়, বিশ্বকাপে অধিনায়কত্ব করতে চান না এই অলরাউন্ডার। এশিয়া কাপের সময়ই নেতৃত্ব দিতে না চাওয়ার কথা বোর্ডকে জানিয়েছেন সাকিব।

সেখানে অবশ্য তামিম ইকবাল কোনো ইস্যু নন বলেই বিভিন্ন সূত্রের দাবি। বিশ্বকাপে ভালো করতে পারবে না দল, এমন ভাবনা থেকেই সরে দাঁড়ানোর চিন্তা সাকিবের। সঙ্গে কিছু ব্যক্তিগত বিষয়ও রয়েছে। তবে বিশ্বকাপের ঠিক আগে সাকিবকে নেতৃত্ব রাখতে চাচ্ছে বিসিবি।

এ নিয়েই সোমবার দিবাগত রাতে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনের বাসায় বৈঠকে বসেন হেড কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহে ও সাকিব। তিন ফরম্যাটেই অধিনায়কত্ব করা অলরাউন্ডারকে বোঝানোর চেষ্টা করেছেন তারা। মঙ্গলবারও একই চেষ্টা চলবে বলে জানা গেছে।

শেষ অবধি সাকিব অধিনায়কত্ব না করলে কে দেবেন নেতৃত্ব? এ আলোচনায় সবার আগে আসার কথা লিটন দাসের। তিনি দলের সহ-অধিনায়কও। তবে অফ ফর্মে থাকা এই ব্যাটার এখন নেতৃত্ব নিতে চাচ্ছেন না। সেক্ষেত্রে এগিয়ে আছেন তৃতীয় ওয়ানডেতে নেতৃত্ব দেওয়া নাজমুল হোসেন শান্ত।

পাকিস্তানের কাছে ৭ উইকেটে হারলো বাংলাদেশ

 

স্পোর্টস ডেস্কঃ

এশিয়া কাপের সুপার ফোরের প্রথম ম্যাচে পাকিস্তানের কাছে ৭ উইকেটে হেরেছে বাংলাদেশ। বুধবার (৬ সেপ্টেম্বর) লাহোরের গাদ্দাফি স্টেডিয়ামে টস জিতে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেন অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। ব্যাট করতে নেমে ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়ে বাংলাদেশ। মাত্র ৪৭ রানে ৪ উইকেট হারায়।

তবে সাকিব ও মুশফিকুর রহিমের ফিফটিতে ঘুরে দাঁড়ায় বাংলাদেশ। তবে শেষ দিকের ব্যাটারদের ব্যর্থতায় শেষ পর্যন্ত ৩৮ ওভার ৪ বলে ১৯৩ রানে অলআউট হয় লাল-সবুজের প্রতিনিধিরা।

মুশফিক ৮৭ বলে ৬৪ ও সাকিব ৫৭ বলে ৫৩ রান করেন। পাকিস্তানের পক্ষে হারিস রউফ ৪টি ও নাসিম শাহ নেন ৩টি উইকেট।

১৯৪ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে সাবধানী শুরু করেন দুই পাক ওপেনার ইমামুল হক ও ফকর জামান। ইনিংসের চতুর্থ ওভারে শরিফুলের বলে স্লিপে ক্যাচ দেন ফকর। তবে তা তালুবন্দি করতে ব্যর্থ হন নাইম শেখ।

৫ ওভার পর একটি ফ্লাডলাইট বন্ধ হয়ে যায়। সেই কারণে খেলা বন্ধ হয়ে যায়। তবে প্রায় ২০ মিনিটে পরেই আবার শুরু হয় খেলা। এরপর কিছুটা আগ্রাসী ব্যাটিং করে দুই পাক ওপেনার।

তবে ইনিংসের দশম ওভারে প্রথম সাফল্যের দেখা পায় বাংলাদেশ। দলীয় ৩৫ রানে ৩১ বলে ২০ রান করে সাজঘরে ফিরে যান ফকর। তার বিদায়ের পর ক্রিজে আসেন পাক অধিনায়ক বাবর আজম।

ইমামুলকে সঙ্গে নিয়ে রানের চাকা সচল রাখেন বাবর। তবে দলীয় ৭৪ রানে ২২ বলে ১৭ রান করে তাসকিনের বলে বোল্ড হয়ে সাজঘরে ফিরে যান তিনি।

বাবরের বিদায়ের পর ক্রিজে আসেন মোহাম্মদ রিজওয়ান। ইমামুল ও রিজওয়ান মিলে পাকিস্তানের জয়ের ভীত গড়ে দেন। তবে দলীয় ১৫৯ রানে ৮৪ বলে ৭৮ রানে আউট হন ইমামুল।

এরপর ক্রিজে আসা আঘা সালমানকে সঙ্গে নিয়ে দলের জয় নিশ্চিত করে মাঠ ছাড়েন রিজওয়ান।

পার্পল-গোল্ড জার্সিতে শুরু হচ্ছে সাকিবের নতুন মিশন

 

স্পোর্টস ডেস্কঃ

সাকিব আল হাসানের আইপিএল মিশন শুরু হচ্ছে রোববার (১১ এপ্রিল)। নিজের পুরনো দল সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদের বিপক্ষে মাঠে নামবেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার।

গেল আসরে প্রত্যাশা পূরণে ব্যর্থ হওয়া সুনীল নারাইনের জায়গায় একাদশে জায়গা হতে পারে সাকিবের-এমন খবর ভারতের গণমাধ্যমে। চেন্নাইয়ে ম্যাচ শুরু হবে বাংলাদেশ সময় রাত ৮টায়।

অপেক্ষার প্রহর শেষ হতে চলেছে ১১ এপ্রিল। অবশেষে আবারো পার্পল-গোল্ড জার্সিতে মাঠে দেখা যাবে সাকিব আল হাসানকে।

সাকিব নাইটদের জন্য লাকি চার্ম। যে দু’বার শিরোপা জিতেছে কেকেআর, দলে ছিলেন মিস্টার সেভেনটি ফাইভ। শিরোপা জয়ের পথে রেখেছিলেন গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা। ২০১৯ বিশ্বকাপে অতিমানবীয় পারফরম্যান্সের পর, সাকিবকে নিয়ে প্রত্যাশার ব্যপ্তিও বেড়েছে।

মৌসুমের প্রথম ম্যাচে সাকিব আল হাসানদের প্রতিপক্ষ সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ। সাবেক দলের বিপক্ষে মাঠে প্রথম ম্যাচে সাকিব খেলবেন কিনা, এ নিয়ে সবারই আছে ব্যাপক আগ্রহ।

তবে ভারতের গণমাধ্যম বলছে সুনীল নারাইনের জায়গায় একাদশেই খেলবেন সাকিব। গেল মৌসুমটা ভালো কাটেনি ক্যারিবিয়ান নারাইনের। তাছাড়া চিদাম্বরমের স্লো উইকেটে কার্যকর হবে সাকিবের স্পিন বোলিং-ও।

সাকিব ছাড়া বাকি তিন বিদেশি মরগ্যান, আন্দ্রে রাসেল আর প্যাট কামিন্সকে নিয়ে একাদশ সাজাতে পারে কেকেআর। ওপেনিংয়ে থাকবেন যথারীতি শুভমান গিল ও রাহুল ত্রিপাঠি। আর চিদাম্বরমের উইকেটে খেলার অভিজ্ঞতা থেকে এগিয়ে থাকবেন হরভজন সিং।

কেকেআরের পূর্ণমেয়াদে অধিনায়ক হিসেবে অভিষেক হচ্ছে বিশ্বকাপজয়ী ইংলিশ ক্রিকেটার ইয়ন মরগ্যানের। অভিষেকের শুরুটা জয় দিয়ে করতে চাইবেন মরগ্যান।

কেকেআরের মতো সাবেক চ্যাম্পিয়ন সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ এবার মুখিয়ে আছে শিরোপা ফিরে পেতে। দলটার কোচ ট্রেভর বেইলিস কেকেআরেও ছিলেন ২০১২ থেকে ১৫ পর্যন্ত।

সানরাইজার্স অধিনায়ক ডেভিড ওয়ার্নারের ফিটনেস নিয়ে কিছুটা শংকা থাকলেও প্রথম ম্যাচে মাঠে নামবেন তিনি। জনি বেয়ারস্টো, কেইন উইলিয়ামসন, রাশিদ খান ছাড়াও আছেন ভুবি-নাটরাজন- মানিশ পান্ডেরা। তাই বলাই যায় লড়াই হবে হাড্ডাহাড্ডি।

দু’দলের মুখোমুখি ১৯ দেখায় ১২ জয় কেকেআরের। আর হায়দ্রাবাদ জিতেছে ৭টিতে।

পুনর্বিবেচনায় সাকিবের আইপিএল অনুমতি: বিসিবি

স্পোর্টস ডেস্কঃ

শনিবার (২০ মার্চ) রাতে সাকিব আল হাসানের এক ফেসবুক লাইভের পর থেকে রীতিমতো উত্তাল দেশের ক্রিকেটাঙ্গন। যেখানে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের সভাপতি হওয়ার ইচ্ছাপ্রকাশ থেকে শুরু করে বোর্ডের নানান কাজের বিষয়ে সরাসরি প্রশ্ন তুলেছেন সাকিব। পাশাপাশি কথা বলেছেন নিজের আইপিএল খেলতে যাওয়ার সিদ্ধান্তের বিষয়েও।

রোববার (২১ মার্চ) সারাদিন সাকিবের এসব বক্তব্যকে ঘিরেই চলেছে নানান আলোচনা। তবে বিসিবির পক্ষ থেকে এ বিষয়ে মেলেনি কোনো আনুষ্ঠানিক প্রতিক্রিয়া। অবশেষে সন্ধ্যা পেরিয়ে রাত গড়াতে এ বিষয়ে সংবাদমাধ্যমে কথা বললেন বোর্ডের দুই পরিচালক আকরাম খান ও নাইমুর রহমান দুর্জয়।

সাকিব তার লাইভে সরাসরি অভিযোগের তীর ছুড়েছিলেন ক্রিকেট অপারেশনস কমিটির চেয়ারম্যান আকরাম খানের দিকে। শ্রীলঙ্কা সফরের সময় আইপিএল খেলতে চেয়ে ছুটি নেয়ার বিষয়ে যে চিঠি দিয়েছেন, সেটি আকরাম পড়েননি বলে মন্তব্য করেছেন সাকিব। যে কারণে বারবার সাকিবের টেস্ট খেলতে অনীহা জানিয়ে মন্তব্য করেছেন আকরাম- এমনটাই বলেছেন সাকিব।

এ বিষয়ে বোর্ড সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনের বাসায় বৈঠকের পর আকরাম জানিয়েছেন, সাকিবের আইপিএল খেলার অনাপত্তিপত্র (এনওসি- নো অবজেকশন সার্টিফিকেট) দেয়ার ব্যাপারে নতুন করে ভাববে বিসিবি। সাকিব টেস্ট খেলতে চাইলে তাকে শ্রীলঙ্কা নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন আকরাম।

আকরাম বলেছেন বোর্ড সভাপতির বাসায় বৈঠকটি সাকিব ইস্যুতে ছিল না। তবে এ বিষয়ে তিনি কথাও বলেছেন ঠিকই। আকরামের ভাষ্য, ‘আজকে আমাদের মূলত মিটিং ছিল জাতীয় দলের ব্যাপারে। দল এখন নিউজিল্যান্ডে। এসব ব্যাপার নিয়ে আলোচনা হয়েছে। এটাও চিন্তা করেছি যাতে আমাদের এটা কোনো প্রভাব না ফেলে দলের ওপর।’

তিনি আরও যোগ করেন, ‘সাকিবের ইন্টারভিউ এখনও পুরোপুরি দেখিনি। তবে আপনার কাছ থেকে কিছু শুনেছি। যেখানে অনেক কথার মধ্যে একটা ছিল, ও চিঠি দিয়েছে, আমি নাকি সেই চিঠি পড়িনি। তাহলে ঠিক আছে, আমি ভুল বুঝতে পারি। ও টেস্ট খেলতে চাচ্ছে, ওর কথায় বোঝা গেছে। তাহলে কাল-পরশু বোর্ডের সবার সঙ্গে কথা বলে (আইপিএলের) এনওসি (অনাপত্তিপত্র) নিয়ে চিন্তা করব।’

এছাড়া বাকি বিষয়ে পরে বিস্তারিত সিদ্ধান্ত নেয়া হবে বলে জানালেন ক্রিকেট অপারেশনস প্রধান, ‘সাকিবের যদি টেস্ট খেলতে চায় তাহলে খেলবে। যাবে, শ্রীলঙ্কা গিয়ে টেস্ট খেলবে। আর বাকি যেটা আছে, সেটা (সাকিবের ইন্টারভিউ) দেখে বোর্ড এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেবে যে কী করা যায়, না করা যায়।’

আকরাম আরও যোগ করেন, ‘আমার তো শুধু সাকিবকে নিয়ে দায়িত্ব না, আমার দায়িত্ব পুরো বাংলাদেশ দলকে নিয়ে। আমি তো এত বড় একটা দায়িত্বে আছি, অনেকদিন ধরেই এ দায়িত্বে আছি। তো ও যদি মনে করে, চিঠি ঠিকভাবে পড়িনি… ওটাই বললাম, আমরা তো শ্রীলঙ্কা যাচ্ছি দুইটা টেস্ট খেলতে… ওখানে আমাদের ওয়ানডে, টি-টোয়েন্টি নাই। তাহলে তো সে ওটার (টেস্ট) জন্যই ছুটি চেয়েছে। এখন সে টেস্ট খেলতে চায়, তাহলে খেলবে। আমরা তাহলে ওর এনওসির ব্যাপার নিয়ে চিন্তা করব।’

উল্লেখ্য, দারাজের ব্যবস্থাপনায় ক্রিকফ্রেঞ্জির লাইভে সাকিব বলেছেন, ‘আমি বিসিবিকে যে চিঠি দিয়েছি, কোথাও বলিনি টেস্ট খেলতে চাই না। আমি লিখেছি বিশ্বকাপের প্রস্তুতির জন্য খেলতে চাই না। পাপন ভাইকে ধন্যবাদ উনি সঠিক সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। প্লেয়ারদের এই স্বাধীনতা দেওয়া উচিত। মানুষ যে, বারবার বলছে যে টেস্ট খেলতে চাই না। এটা সঠিক নাই। আমি বলেছি বিশ্বকাপ প্রস্তুতির জন্য এই সময়ে আমি আইপিএল খেলতে চাই, (শ্রীলঙ্কা সফরে) ওয়ানডে থাকলেও খেলতাম।’