বুধবার, ২৪শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

সীমান্তে খাদ্যদ্রব্য কম আটক করে, মাদকদ্রব্য আটক করুন- এমপি বাহার

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
জানুয়ারি ২, ২০২০
news-image

 

মাছুম কামালঃ

কুমিল্লায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের ৩০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত হয়েছে। দিবসটি উপলক্ষ্যে আজ বেলা সাড়ে ১১টায় নগরীর কান্দিরপাড়ের বীরচন্দ্র নগর মিলনায়তনে জাতীয় পতাকা উত্তোলন, বেলুন ও শান্তির প্রতীক কবুতর উড়িয়ে আলোচনা সভার উদ্বোধন করেন কুমিল্লা-৬ আসনের সংসদ সদস্য হাজী আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহার।

এ উপলক্ষ্যে আজ বীরচন্দ্র নগর মিলনায়তনে জেলা প্রশাসন ও মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের উদ্যোগে এক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কুমিল্লা-৬ আসনের সংসদ সদস্য হাজী আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহার।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পদোন্নতিপ্রাপ্ত অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শাখাওয়াত হোসেন। উপস্থিত ছিলেন, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর কুমিল্লার উপ-পরিচালক মানজুরুল ইসলাম।

এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন আদর্শ সদর উপজেলার চেয়ারম্যান এডভোকেট আমিনুল ইসলাম টুটুল। ১০ বিজিবি কুমিল্লার উপ-অধিনায়ক মেজর আব্দুল্লাহ ফারুকী। আদর্শ সদর উপজেলার নির্বাহী অফিসার জাকিয়া আফরিন।

দুপুর ১২টায় কুরআন তেলাওয়াতের মধ্য দিয়ে আলোচনা সভা শুরু হয়। সভায় এক বক্তব্যে পদোন্নতিপ্রাপ্ত অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বলেন, ‘মাদক শুধু বাংলাদেশেই নয়, সারা পৃথিবীর জন্য বিশাল একটা ক্রাইসিস।’। তিনি জানান: ২০১৯ সালের জানুয়ারি মাস থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত জেলা পুলিশ প্রায় ৩ লক্ষ ৯৭ হাজার পিস ইয়াবা, ৮১৫৭ বোতল ফেন্সিডিল, ৩১৮৯ কেজি গাঁজা উদ্ধার করে।

বক্তব্যের এক পর্যায়ে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর কুমিল্লার উপ-পরিচালক মানজুরুল ইসলাম জানান: ২০১৯ সালের জানুয়ারি থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত তারা প্রায় ২৭ কোটি ১৮ লাখ ১১,৯৯৪ টাকা মূল্যের মাদকদ্রব্য আটক করে। এবং এসব ঘটনায় ৪৮৮৪টি মামলা দায়ের করা হয়। এসময় তিন বলেন, ‘প্রতিদিন ৩ মিলিয়ন ইয়াবার প্রয়োজন হয় সারাদেশে। আমরা সম্মিলিত ভাবে অভিযান চালিয়ে মাদকের ডিমান্ড রিডেকশান করছি।’

এছাড়াও ১০ বিজিবির উপ-পরিচালক মেজর আব্দুল্লাহ ফারুকী জানান, ‘বিগত বছরে ১০ বিজিবির কুমিল্লা ব্যাটালিয়ন প্রায় ৩৩ কোটি টাকার মাদকদ্রব্য আটক করে। এসব ঘটনায় ৪৯৩ জনকে আসামী করে মামলা দায়ের করা হয় এবং ২৯ জনকে ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে তৎক্ষণাৎ শাস্তি দেয়া হয়।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে কুমিল্লা-৬ আসনের সংসদ সদস্য হাজী আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহার বলেন, ‘কুমিল্লার সঙ্গে ভারতীয় সীমান্তের কারনে কুমিল্লা মাদকের একটা বড় গেটওয়ে।

বিজিবি’কে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, ‘সীমান্ত খাদ্যদ্রব্য কম করে আটক করে হলেও, মাদকদ্রব্য আরও অধিক পরিমাণে আটক করেন।

তিনি আরও বলেন, ‘আমরা সারা বাংলাদেশে ৩৫ কোটি বই ১৫ লক্ষ শিক্ষার্থীর হাতে তুলে দিতে পেরেছি। ৪১ সালের মধ্যে সোনার বাংলাদেশ বিনির্মাণ করলে এত পরিমাণে মাদকদ্রব্য ধরতে হবে না। এমনিই মাদক থাকবে না।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক, শিক্ষার্থীদের উদ্দ্যেশ্যে এমপি বাহার বলেন: মাদক জীবন ধ্বংস করে। মাদকের ব্যাপারে আমাদের জিরো টলারেন্স। সন্ত্রাস, ইভটিজিং আমরা বন্ধ করেছি, মাদকও বন্ধ হবে। তবে, সবাই ঐক্যবদ্ধ হলে আমরা কুমিল্লাকে দ্রুত মাদকমুক্ত করতে পারবো।

দিবসটি উপলক্ষ্যে কেক কাটার মধ্য দিয়ে সভার সমাপ্তি হয়।

আর পড়তে পারেন