মঙ্গলবার, ৩০শে নভেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

নানা আয়োজনে কুমিল্লায় সশস্ত্র বাহিনী দিবস উদযাপন

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
নভেম্বর ২১, ২০২১
news-image

নাছরিন আক্তার হীরা/ইসতিয়াক আহমেদ:
নানা অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে  কুমিল্লা সেনানিবাসে সশস্ত্র বাহিনী দিবস উদযাপিত করা হয়েছে।

রবিবার (২১ নভেম্বর) বিকালে কুমিল্লা সেনানিবাসের এম.আর চৌধুরী প্রাঙ্গন মাঠে বর্ণাঢ্য আয়োজনে দিবসটি উদযাপন করা হয়।

এতে মুক্তিযোদ্ধা, শহীদ পরিবারসহ আমন্ত্রিত অতিথিদের অভ্যর্থনা জানান সেনাবাহিনীর ৩৩ পদাতিক ডিভিশনের জিওসি ও কুমিল্লা এরিয়া কমান্ডার মেজর জেনারেল মো. জাহাঙ্গীর হারুন, এসজিপি, এনডিসি, এএফডব্লিউসি,পিএসসি।

অনুষ্ঠানে সাবেক প্রতিমন্ত্রী ক্যাপ্টেন (অব.) এবিএম তাজুল ইসলাম এমপি, আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহার এমপি, আঞ্জুম সুলতানা সীমা এমপি, রওশন আরা মান্নান এমপি, নাছিমুল আলম চৌধুরী এমপি, নিজাম উদ্দিন হাজারী এমপি, জাতীয় প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি শফিকুর রহমান এমপি, এরোমা দত্ত এমপি, কুমিল্লা বিশ^বিদ্যালয়ের ভিসি ড. এমরান কবির চৌধুরী, কুমিল্লা জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ কামরুল হাসান, পুলিশ সুপার ফারুক আহমেদ, কুমিল্লা জেলা পরিষদের সাবেক প্রশাসক মো. ওমর ফারুক, বিভিন্ন সামরিক-অসামরিক প্রশাসনের কর্মকর্তা ও বিভিন্ন শ্রেণি পেশার বিশিষ্টজনেরা উপস্থিত ছিলেন। বিকাল ৪ টার দিকে অতিথিদের অংশগ্রহণে কেক কাটা হয়। পরে মুক্তিযোদ্ধা ও শহীদ পরিবারের সদস্যগণের হাতে সম্মাননা ও উপহার তুলে দেন সেনাবাহিনীর ৩৩ পদাতিক ডিভিশন ও কুমিল্লা এরিয়া কমান্ডার মেজর জেনারেল মো. জাহাঙ্গীর হারুন।

অনুষ্ঠানে ১ হাজার বীর মুক্তিযোদ্ধা, কুমিল্লা, চাঁদপুর, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, নোয়াখালী, লক্ষ্মীপুর, ফেনী জেলার মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডারবৃন্দ ও শহীদ পরিবারের সদস্যবৃন্দ, সাবেক সেনা কর্মকর্তা, সামাজিক ও পেশাজীবী সংগঠনের প্রতিনিধি, প্রিণ্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার প্রতিনিধিগণ অংশগ্রহণ করেন।

সেনাবাহিনীর ৩৩ পদাতিক ডিভিশনের জিওসি ও কুমিল্লা এরিয়া কমান্ডার মেজর জেনারেল মো. জাহাঙ্গীর হারুন, এসজিপি, এনডিসি, এএফডব্লিউসি,পিএসসি অনুষ্ঠানের প্রথমেই স্বাগত বক্তব্য রাখেন। তিনি তাঁর ভাষণে  সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙ্গালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, অগণিত বীর শহীদ, সাহসী বীর মুক্তিযোদ্ধা এবং বিভিন্ন সামরিক- আধা সামরিক বীর সেনানিদের স্মরণ করেন। তার ভাষণে দেশ উন্নয়নে সশস্ত্র বাহিনীর নিরলস প্রচেষ্টার কথা ও দেশের সুনাম বৃদ্ধিতে সশস্ত্র বাহিনীর প্রতিটি সদস্যের কঠোর আত্মত্যাগের চিত্র তুলে ধরেন। পেশাগত দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি সশস্ত্র বাহিনী জাতীয় পর্যায়ে যে কোন দুর্যোগ মোকাবেলা, অবকাঠামো নির্মান, আর্ত মানবতার সেবা, পাবর্ত্য চট্টগ্রামে সন্ত্রাস দমন, জঙ্গী দমন, বেসামরিক প্রশাসনকে সহায়তা এবং বিভিন্ন জাতিগঠনমূলক কর্মকান্ডসহ জাতিসংঘের শান্তিরক্ষা কার্যক্রমে নিষ্ঠার  সাথে দায়িত্ব পালন করে আন্র্তজাতিক পরিমন্ডলে দেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করছে বলে তিনি সকলকে অবহিত করেন। তিনি আরো বলেন, সশস্ত্র বাহিনীর আধুনিকায়ন, সম্প্রসারণ ও যুগোপযোগি করার লক্ষ্যে আধুনিক প্রযুক্তি সমৃদ্ধ সামরিক উপকরণ দিয়ে শক্তিশালী করাসহ প্রতিটি সদস্যের গুণগত ও পেশাগত দক্ষতা বৃদ্ধির জন্য বর্তমান সরকার সব সময় আন্তরিক রয়েছে, যা সশস্ত্র বাহিনীর প্রতিটি সদস্যকে অনুপ্রাণিত ও আশ্বস্থ করেছে।

আর পড়তে পারেন