শুক্রবার, ১৯শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

কুমিল্লা শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত স্টেডিয়াম যেন জাতীয় স্টেডিয়ামের প্রতিচ্ছবি

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
ফেব্রুয়ারি ২৯, ২০২০
news-image

 

স্টাফ রিপোর্টারঃ

মুজিববর্ষ উপলক্ষ্যে কুমিল্লায় কাউন্সিলর কাপ টি-টুয়েন্টি ক্রিকেট টুর্নামেন্ট  এক ইতিহাস রচনা করলো। সেই ইতিহাস গৌরবের , সেই ইতিহাস দর্শকদের পুনরায় মাঠে টেনে নেয়ার। অনেক বছর পরে শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত স্টেডিয়াম আবার প্রাণ ফিরে পেল। কানায় কানায় পূর্ন দর্শক। চারদিকে খেলার উত্তেজনা। সব মিলিয়ে সফলতার ইতিহাস হয়ে থাকবে এই টুর্ণামেন্ট। আর এই ইতিহাস তৈরির ভূমিকায় ছিলেন কুমিল্লা জেলা ক্রীড়া সংস্থা ও কুমিল্লা জেলা ক্রিকেট কমিটি।

কনসার্ট আর আতশবাজির ঝলকানিতে গত ১৫ ফেব্রুয়ারি এক জমকালো উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে শুরু হয় এই টুর্নামেন্ট  ৷ শুরু থেকে ক্রমেই দর্শকের উপস্থিতি বাড়তে থাকে। ব্যাপক প্রচার ও মিডিয়া কাভারেজে কুমিল্লাবাসির মনে মাঠে ফেরার ইচ্ছেটা জাগ্রত হয়। কুমিল্লা জেলা ক্রীড়া সংস্থা ও কুমিল্লা জেলা ক্রিকেট কমিটির সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনায় টুর্নামেন্টটি ব্যাপক জনপ্রিয়তা পায়। সেমিফাইনাল ও ফাইনাল ম্যাচে এই স্টেডিয়াম রূপ নেয় জাতীয় স্টেডিয়ামে। মনে হচ্ছিল ইন্টারন্যাশনাল কোন মাঠে উপচে পড়া দর্শকের ভিড়ে খেলা চলছে।

ফাইনাল খেলাটি মহাকাব্য সৃষ্টি করে। ঢাকঢোল , বাশি, প্ল্যাকার্ড নিয়ে জার্সি পড়ে সব বয়সের মানুষ সমবেত হয় এই স্টেডিয়ামে। চারদিকে ছিল সাজ সাজ রব। ছিল সুন্দর ব্যবস্থাপনা। ছেলে-মেয়েরা এক সাথে খেলা দেখলেও হয়নি কোন অপ্রীতিকর ঘটনা। এমন পরিবেশ হয়তো এবার প্রথম দেখা মিললো কুমিল্লাবাসির প্রাণের এই স্টেডিয়ামে।  ১৫ হাজার ধারণ ক্ষমতা সম্পন্ন এই  স্টেডিয়ামে আসন ছাড়াও  দাড়িয়ে খেলা উপভোগ করেছে  হাজার হাজার ক্রিকেটপ্রেমী ৷ এছাড়া স্টেডিয়ামের বাইরেও  ক্যাবল টিভি, অনলাইন টিভি কুমিল্লা টোয়েন্টি ফোর টিভির মাধ্যমে খেলা দেখেন  লাখো দর্শক। এমন একটি চিত্রই তো আশা করেছিল কুমিল্লার ক্রীড়াঙ্গন। ঝিমিয়ে পড়া কুমিল্লার ক্রীড়াঙ্গনকে জাগিয়ে তুললো এই টুর্ণামেন্ট। এই খেলাকে ঘিরে পাড়ায় পাড়ায় তরুণদের মাঝে  যে উন্মাদনা সৃষ্টি হয়েছে তা ছিল দেখার মত।

এই টুর্নামেন্টটিকে সাফল্যমন্ডিত করেছে জাতীয় দল ও জাতীয় ক্রিকেট লীগের খেলোয়াড়রা।  এবারই প্রথম এক ঝাক মেগাস্টারের দেখা মিললো এই স্টেডিয়ামে।  বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের লিটল মাষ্টার মোহাম্মদ আশরাফুল,  অ্যাটাকিং ব্যাটসম্যান সাব্বির রহমান, পেসার সাইফউদ্দিন, অলরাউন্ডার নাসির হোসেন, ব্যাটসম্যান জুনাইদ সিদ্দিকি, বোলার শামসুর রহমান, স্পিনার এনামুল হক জুনিয়র, অলরাউন্ডার ইলিয়াস সানি, ব্যাটসম্যান কাম বোলার জিয়াউর রহমান, স্পিনার সানজামুল ইসলাম,  পেসার আবু হায়দার রনিসহ অনুর্ধ্ব ১৯ জাতীয় দলের বিশ্বজয়ী  টাইগার অধিনায়ক আকবর আলী, মাহমুদুল হাসান জয়, রাকিবুল ইসলামসহ অনেক নামকরা ক্রিকেটার । তাদের উপস্থিতি টুর্ণামেন্টটিকে জাতীয় পর্যায়ে রূপ দিয়েছে।

উল্লেখ্য যে, কুমিল্লা সদর সাংসদ ,  মহানগর আ’লীগের  সভাপতি হাজী আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহারের সার্বিক দিক নির্দেশনায় টুর্ণামেন্টে কমিটির সভাপতি আরফানুল হক রিফাত, জেলা ক্রীড়া সংস্থ্যার সাধারণ সম্পাদক নাজমুল আহসান ফারুক রোমেন, ক্রিকেট উপ-কমিটির সভাপতি সাইফুল আলম রনি, জাগ্রত মানবিকতার সাধারণ সম্পাদক তাহসীন বাহার সূচনার কঠোর পরিশ্রমেই সফলতা পেয়েছে এই টুর্ণামেন্ট। আর জায়গা করে নিয়েছে মানুষের মনের মণিকোঠায়।

উল্লেখ্য যে, ঐতিহাসিক এই টুর্নামেন্টের ফাইনালে  সাব্বিরের রয়েলস অব গোমতি চ্যাম্পিয়ন হয়েছে।

 

আর পড়তে পারেন