শনিবার, ২০শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

বর্ষসেরা তালিকার শীর্ষে মোদি

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
ডিসেম্বর ৫, ২০১৬

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : ২০১৬ সালে প্রভাবশালী ব্যক্তির দিক থেকে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি তালিকার শীর্ষে রয়েছেন।

‘পার্সন অব দি ইয়ার ২০১৬’ অর্থাৎ ২০১৬ সালে বর্ষসেরা ব্যক্তি নির্বাচনে টাইম ম্যাগাজিনের পাঠক জরিপে সবচেয়ে বেশি ভোট পেয়েছেন ভারতের ১৫তম প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র দামোদরদাস মোদি।

অন্যান্য বিশ্বনেতা, শিল্পী ও রাজনীতিককে পেছনে ফেলে বিশ্বের সবচেয়ে বেশি প্রভাবশালী ব্যক্তির তালিকায় স্থান করে নিয়েছেন তিনি । তবে পার্সন অব দ্য ইয়ার চূড়ান্ত হবে ম্যাগাজিনটির সম্পাদকদের ভোটে এবং আগামী ৭ ডিসেম্বর তা ঘোষণা করা হবে।

রোববার মধ্যরাতে ভোট গণনা শেষে দেখা যায়, মোদি পেয়েছেন মোট ভোটের ১৮ শতাংশ। তালিকায় ঠিক তার পেছনে থাকা যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা, নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জ পেয়েছেন সাত শতাংশ ভোট। ফেসবুকের প্রতিষ্ঠাতা মার্ক জুকারবার্গ দুই শতাংশ ও হিলারি ক্লিনটন চার শতাংশ ভোট পেয়েছেন।

টাইম তাদের বিশ্লেষণে বলেছে, কোন নেতাকে নিয়ে কখন বেশি আলোচনা হয়েছে। ২০১৬ সালের অক্টোবর মাসের ১৬ তারিখে ভারতের গোয়ায় ব্রিকস শীর্ষ সম্মেলনে মোদি পাকিস্তানকে ‘সন্ত্রাসের আতুড়ঘর’ বলার পর থেকে তাকে নিয়ে বিশ্বজুড়ে আলোচনা হয়।

২০১৪ সালেও টাইমের পাঠক জরিপে বিশ্বের শীর্ষ প্রভাবশালী ব্যক্তি ছিলেন মোদি। সেবার ৫০ লাখ ভোট পড়েছিল, যার মধ্যে এককভাবে মোদি পেয়েছিলেন ১৬ শতাংশ ভোট। ২০১৫ সালেও তিনি এ তালিকায় আলোচিত ছিলেন কিন্তু শেষ পর্যন্ত শীর্ষ আটে ছিলেন না। গত বছর জার্মানির চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মেরকেল ‘পারসন অব দি ইয়ার’ নির্বাচিত হন।

টাইম ম্যাগাজিন প্রতিবছর পাঠক জরিপের ওপর ভিত্তি করে নির্ধারণ করেন কে বা কারা চলতি বছরে সবচেয়ে বেশি প্রভাব বিস্তার করেছেন। ভালো বা মন্দ, বিতর্কিত বা প্রশংসিত, রাজনীতি, অর্থনীতি, জিহাদ-জঙ্গি, সংগীত-সাংবাদিকতা যেকোনো দিক থেকে প্রভাব বিস্তার করতে পারেন মানুষ। প্রতিবছর টাইম ম্যাগাজিন মানুষগুলোকে খুঁজে বের করেন পাঠকদের ভোটের মাধ্যমে।

টাইম ম্যাগাজিনের হয়ে অ্যাপাস্টার জরিপ পরিচালনা করে। তাদের বিশ্লেষণে বলা হয়েছে, ব্যক্তি ও অঞ্চল ভেদে প্রভাবের কম-বেশি আছে। নরেন্দ্র মোদি ভারতে ও যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়া ও নিউ জার্সিতে তুলনামূলক অনেক ভোট পেয়েছেন। যুক্তরাষ্ট্রের এ দুই রাজ্যে ভারতীয় বংশোদ্ভূত মার্কিনিদের সংখ্যা বেশি।

আর পড়তে পারেন