মঙ্গলবার, ৩০শে নভেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

আজ বাংলার ঘরে ঘরে ঈদ উৎসব

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
মে ১৪, ২০২১
news-image

ডেস্ক রিপোর্ট:

‘ও মন রমজানের ঐ রোজার শেষে এলো খুশির ঈদ। তুই আপনাকে আজ বিলিয়ে দে, শোন আসমানি তাগিদ’– দীর্ঘ ৩০ দিন রোজা রাখার পর বাংলাদেশে শুক্রবার উদযাপিত হচ্ছে পবিত্র ঈদুল ফিতর।

বুধবার ঈদের চাঁদ দেখা না যাওয়ায় এ বছর ৩০ রমজান পূর্ণ হয়েছে। তাই বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার পর থেকে ঈদের চাঁদ দেখা দেওয়ার পর জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের এই গান রেডিও, টেলিভিশনে সম্প্রচার শুরু হয়। শুরু হয় চাঁদ রাতেই ঈদের খুশি, আনন্দ। পরস্পরের সঙ্গে সাক্ষাৎ, ফোনে ও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ঈদের শুভেচ্ছা বিতরণ শুরু।

স্বাধীনতার পর থেকে বরাবরই এমনটা হয়ে আসছে বাংলাদেশে। অদৃশ্য করোনাভাইরাসের কারণে বিশ্বব্যাপী মহামারি দেখা দেওয়ায় ঘরবন্দি মানুষের উৎসবে যেন সেই প্রাণটাই আজ বড় বিবর্ণ। তারপরও শুক্রবার মুসলমান ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় উৎসবের দিন।

চিরায়ত উদযাপনের যে ধারা দেড় হাজার বছর ধরে প্রচলিত, তা এ বছরে পুরোপুরি বিপরীত। বিশ্ব মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে এই ঈদ উদযাপন হবে সীমিত, ঈদের জামাত হবে মসজিদে।

সরকারের পক্ষ থেকে জোর দিয়েই বলা হয়েছে, মহামারিকালের এ ঈদে কোলাকুলি থেকে বিরত থাকতে হবে। বাইরে না গিয়ে ঘরে থেকে পরিবারের স্বজনদের সঙ্গে কাটাতে হবে পবিত্র ঈদুল ফিতর।

ঈদুল ফিতরের তারিখ নির্ধারণে গত বুধবার সন্ধ্যায় ধর্ম প্রতিমন্ত্রী ফরিদুল হক খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভার পর ধর্ম প্রতিমন্ত্রী জানান, দেশের কোথাও পবিত্র শাওয়াল মাসের চাঁদ দেখা যায়নি। ফলে শুক্রবার উদযাপিত হবে ঈদুল ফিতর। তিনি দেশবাসীকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে পবিত্র ঈদুল ফিতর উদযাপনের আহ্বান জানান।

করোনাভাইরাস মোকাবিলা ও সংক্রমণ বিস্তার রোধে সরকারের নির্দেশনায় এবার খোলা মাঠে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হচ্ছে না। ঈদ জামাত হবে মসজিদের ভেতরে শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখে ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে।

রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শুভেচ্ছা

রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পৃথক বাণীতে দেশবাসীকে পবিত্র ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। এ ছাড়া প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় জাতির উদ্দেশে শুভেচ্ছা ভাষণ দেন।

খোলা মাঠে হচ্ছে না ঈদের জামাত

অনিশ্চিত ভবিষ্যতের আশঙ্কার মধ্যেই আসছে এবারের ঈদ। মুসলিম সম্প্রদায়ের মধ্যে ঈদকে ঘিরে যে আনন্দ-উচ্ছ্বাস থাকার কথা তা এবারও গত বছরের মতো ম্লান করে দিয়েছে মহামারি করোনাভাইরাস।

করোনা মোকাবিলায় ও সংক্রমণ বিস্তার রোধে সরকারের নির্দেশনায় এবার খোলা মাঠে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হচ্ছে না। ঈদ জামাত হবে মসজিদের ভেতরে শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখে ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে।

এবার হাইকোর্ট সংলগ্ন জাতীয় ঈদগাহে ঈদের জামাত হচ্ছে না। হচ্ছে না শত বছরের ঐতিহ্য ঐতিহাসিক শোলাকিয়া ময়দানে ঈদ জামাতও।

বর্তমান করোনা পরিস্থিতিতে আত্মীয়-স্বজন ও প্রতিবেশীদের বাসায় যাতায়াত না করার পাশাপাশি বিনোদনকেন্দ্রে ঘোরাঘুরি না করে নিজ ঘরে ঈদ উদযাপন করতেও বলা হয়েছে।

আর পড়তে পারেন