মঙ্গলবার, ২৮শে জুন, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

কুবিতে দুই শিক্ষার্থীকে শিবির বলে ছাত্রলীগের মারধর

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
আগস্ট ৯, ২০১৭
news-image

স্টাফ রিপোর্টারঃ
কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে দুই শিক্ষার্থীকে শিবির বলে মারধর করেছে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা।

বুধবার (৯ অক্টোবর) দুপুরে শিবির বিরোধী বিক্ষোভ মিছিল শেষে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকের একটু দূরে দুই শিক্ষার্থীকে মারধর করা হয়।

জানা যায়, সিলেটে দুই ছাত্রলীগ নেতাকে কুপিয়ে আহত করার প্রতিবাদে বুধবার ক্যাম্পাসে শিবির বিরোধী বিক্ষোভ করে শাখা ছাত্রলীগ। বিক্ষোভ শেষে গণিত ৯ম ব্যাচের শিক্ষার্থী আব্দুর রহমানকে বাস থেকে নামিয়ে বিশ্বব্যিালয়ের ফটকের সামনে চায়ের দোকানের পাশে নিয়ে আসে ছাত্রলীগ কর্মীরা। পরে তাকে বেধড়ক পিটাতে থাকে ছাত্রলীগ কর্মী বিদ্যুৎ (পদার্থ), এআইএস বিভাগের দ্বীন ইসলাম লিখন, শাহাদাৎ হোসেন সৌরভ, মাসুদসহ আরো অনেকে। এ সময় পাশেই দাঁড়িয়ে ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগ সভাপতি ইলিয়াস হোসেনসহ বেশ কয়েকজন নেতাকর্মী। মারধরের ঘটনার পরে ওই শিক্ষার্থীকে ছাত্রলীগের নেতারা জিজ্ঞাসাবাদের সময় ঘটনাস্থলে আসে প্রক্টর মোঃ কাজী কামাল ও সহকারী প্রক্টর খলিলুর রহমান। পরে আহত আব্দুর রহমানকে সিএনজিতে করে পাঠিয়ে দেয় প্রক্টর। এ ঘটনার ঠিক পরপরই এক কোরআনের হাফেজ ও ইংরেজী বিভাগের ৭ম ব্যাচের শিক্ষার্থী মনিরুল ইসলামকে সামাজিক বন বিভাগে শিবির বলে মারধর করে ছাত্রলীগ কর্মীরা। তবে যাদের মারধর করা হয়েছে তারা কেউই ছাত্রশিবিরের সাথে সম্পৃক্ত নয় বলে সাংবাদিকদের জানান ভূক্তভোগীরা।
কেন তাদের মারা হল এই বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি ইলিয়াস হোসেন সবুজ বলেন, ‘কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে যারা শিবির নামধারী হয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ে নাশকতা করবে তাদের বিষয়ে ছাত্রলীগ কঠোর অবস্থান নিবে।’
এ বিষয়ে প্রক্টরের ড. কাজী মোহাম্মাদ কামাল উদ্দিন বলেন, মারধরের ঘটনা শুনে আমি ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখি কয়েকজনের মধ্যে কথা কাটাকাটি চলছে। ওই সময় আহত ছেলেটিকে আমি সিএনজি ঠিক করে পাঠিয়ে দেই। মারধর শিকার হওয়া শিক্ষার্থী শিবির করে কিনা জানি না। তবে ওই শিক্ষার্থী যদি অভিযোগ করে আমরা তদন্ত করে ব্যবস্থা নিবো। আর আমার সামনে মারধর করা হয়েছে কথাটা সঠিক নাহ।

আর পড়তে পারেন