মঙ্গলবার, ২৮শে জুন, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

চান্দিনায় কর্মস্থল থেকে ফেরার পথে ধর্ষণের শিকার কিশোরী শ্রমিক

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
অক্টোবর ১০, ২০১৮
news-image

মহিউদ্দিন ভূইয়া ঃ
কুমিল্লার চান্দিনায় কর্মস্থল থেকে বাসায় ফেরার পথে ফাতেমা আক্তার (১৫) নামে এক কিশোরী শ্রমিক ধর্ষণের শিকার হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। সে চান্দিনার বেলাশহর এলাকার ঊষা জুট মিলে শ্রমিকের কাজ করে। ধর্ষণের অভিযোগ এনে সোমবার রাতে কিশোরী ফাতেমার পরিবার ইউসুফ ও ফয়সাল নামে স্থানীয় দুই যুবককে অভিযুক্ত করে চান্দিনা থানায় একটি মামলা দায়ের করে।

শনিবার (৬ অক্টোবর) সন্ধ্যায় চান্দিনা উপজেলার পশ্চিম বেলাশহর এলাকায় সে ধর্ষণের শিকার হয় বলে মামলায় উল্লেখ করা হয়েছে। ফাতেমা তার মামা ও মামীর সাথে বেলাশহর এলাকায় একটি ভাড়া বাসায় বসবাস করে। সেখান থেকেই কর্মস্থলে আসা-যাওয়া করে সে। ফাতেমার মামি লিপি আক্তারের ভাষ্যমতে, ফাতেমার বয়স যখন মাত্র এক বছর তখন তার মাকে তালাক দেন পিতা। পরবর্তীতে তার মায়ের অন্যত্র বিয়ে হলে আমরাই তাকে লালন-পালন করি। গত কয়েক মাস পূর্বে তাকে ঊষা জুট মিলে শ্রমিকের কাজে দেই। তিনি বলেন, ৬ অক্টোবর শনিবার সন্ধ্যা ৭টায় মিলের কাজ শেষে বাসায় ফেরার পথে বেলাশহর গ্রামের মোবারক হোসেনের ছেলে ইউসুফ ও তার সহপাঠি ফয়সাল ফাতেমার মুখে কাপড় চাপা দিয়ে একটি পরিত্যক্ত ঘরে নিয়ে ধর্ষণ করে রাস্তার পাশে ফেলে রেখে পালিয়ে যায়। রাত ১০টার দিকে মিলের অন্য শ্রমিকরা ফেরার পথে বেলাশহরের আরএনআর ব্রীকস সংলগ্ন সড়কের পাশ থেকে তাকে উদ্ধার করে আমাদের বাসায় পৌঁছে দেয়। পরে ফাতেমা আমাদের জানায়, ইউসুফ ও ফয়সাল তাকে ধর্ষণ শেষে রাস্তার পাশে ফেলে গেছে, যোগ করেন তিনি। লিপি আক্তারের অভিযোগ, বিষয়টি নিয়ে স্থানীয়দের কাছে গেলে তারা বিচার করে দিবে বলে আমাদের থানায়ও আসতে দেয়নি। কিন্তু বিচারও করছে না। তাই বাধ্য হয়ে হয়ে মামলা করতে হয়েছে।

চান্দিনা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মুহাম্মদ সামছুল ইসলাম জানান, সোমবার রাত ৮টার দিকে ভিকটিমকেসহ তার পরিবারের সদস্যরা থানায় এসে একটি অভিযোগ দায়ের করেছে। অভিযোগের প্রেক্ষিতে ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতারে অভিযানে নেমেছে পুলিশ। এ ছাড়াও বিষয়টির তদন্ত সাপেক্ষে পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলেও জানান তিনি।

আর পড়তে পারেন