সোমবার, ২৮শে নভেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

দেবিদ্বারে গোমতী নদীর পাশে জমির দখল নিয়ে দু’পক্ষের সংঘর্ষ, আহত ১০ জন

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
আগস্ট ৩১, ২০২১
news-image

 

ডেস্ক রিপোর্টঃ

কুমিল্লার দেবিদ্বারে গোমতী নদীর বাঁধের পাশের এক শতাংশ জমির দখল বুঝে নিতে দু’পক্ষের সংঘর্ষে অন্তত ১০ জন আহত হয়েছেন। ঘটনাস্থল থেকে দুইজনকে আটক করেছেন পুলিশ।

মঙ্গলবার (৩১ আগস্ট) সকালে উপজেলার ৬ নম্বর ফতেহাবাদ ইউনিয়নের লক্ষ্মীপুর গ্রামের গোমতী নদীর বাঁধের পাশের এক শতাংশ জমির দখল বুঝে নেয়াকে কেন্দ্র করে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

আহতদের মধ্যে লক্ষ্মীপুর গ্রামের আব্দুল মতিনের ছেলে নূর নবী (৩৫) ও আবু মুছা (২৯), বাবুল হোসেনের ছেলে আব্দুল্লাহ-আল-নোমান (২১), মৃত আলী হোসেনের ছেলে মো: শাহ আলমসহ (৯০) চারজনকে কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে এবং মৃত কেরামত আলীর ছেলে আব্দুল মতিনকে (৬৫) দেবিদ্বার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। বাকীদের প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে বাড়িতে পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে।

অপরদিকে সংঘর্ষের একপর্যায়ে আহতদের হাসপাতালে নেয়ার পর মৃত আলী হোসেনের ছেলে তব্দল হোসেন (৫৫) ও ময়নাল হোসেনের (৪৫) নেতৃত্বে আবার জমি দখলের চেষ্টাকালে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে তব্দল হোসেন (৫৫) ও ময়নাল হোসেনকে (৪৫) আটক করে থানায় নিয়ে যাওয়া হয়।

স্থানীয় আব্দুল ওয়াদুদ ও মো: ফরিদ উদ্দিন জানান, লক্ষ্মীপুর গ্রামের গোমতী নদীর বাঁধের সাথে মুকশত আলীর ২৫ শতাংশ জমি ছিল। পাকিস্তান আমলে ওই জমির দুই শতাংশ খালে চলে যায়, আর ২৩ শতাংশের মধ্যে আলী হোসেন আট শতাংশ এবং আব্দুল মজিদ ১৫ শতাংশ জমি ক্রয় করেন।

আলী হোসেনের আট শতাংশ জমির মধ্যে পানি উন্নয়ন বোর্ড সাত শতাংশ জমি একোয়ার করে নেয়। বাকী এক শতাংশ জমির মালিকানা নিয়ে আব্দুল মতিন ও আব্দুল হাকিমের মধ্যে দ্বন্দ্ব চলে আসছিল।

আব্দুল মতিন দাবি করেন, এক শতাংশ জমি নন জুডিশিয়াল স্ট্যাম্পের মাধ্যমে ক্রয় করা হয়েছে এবং মো: ময়নাল হোসেনের দাবি ওই জমি স্ট্যাম্পের মাধ্যমে বিক্রয় করা হয়নি তাই এ জমির মালিক আমরা। এছাড়াও ওই বিরোধপূর্ণ এক শতাংশ জমির পাশে পানি উন্নয়ন বোর্ডের পরিত্যাক্ত একোয়ার করা সাত শতাংশ জমি এক শতাংশ জমির অন্তরালে দখল বুঝে নিতেই এ দ্বন্দ্ব চলে আসছে।

দেবিদ্বার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো: আরিফুর রহমান জানান, জমি সংক্রান্ত বিরোধের জেরে দু’পক্ষের সংঘর্ষে বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন। ওই ঘটনায় দু’জনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে। তবে দু’পক্ষেরই মামলা দায়ের প্রক্রিয়াধীন।

আর পড়তে পারেন