শনিবার, ২০শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

ব্যবসায়ী আব্দুর রহমানের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান “বন্ধন ফেব্রিক্স” জোরপূবর্ক দখলের চেষ্টা

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
সেপ্টেম্বর ২২, ২০২২
news-image

স্টাফ রিপোর্টার:

কুমিল্লা কান্দিরপাড় খন্দকার হক টাওয়ারের ব্যবসায়ী আব্দুর রহমানের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান “বন্ধন ফেব্রিক্স” জোরপূবর্ক দখলের চেষ্টা করছে স্থানীয় ভূমিদস্যু প্রভাবশালীরা। এ বিষয়ে কোথাও নালিশ দিলে প্রাণনাশের হুমকিও প্রদান করেছে ওই সন্ত্রাসী বাহিনী। আইনশৃঙখলা বাহিনীর কাছে সাধারন ডায়রী করতে গেলে রহস্যজনকভাবে কোন ধরনের সহযোগিতা পায় নি।

আব্দুর রহমান তার প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে অভিযোগ করে জানান, গত ১৪ সেপ্টেম্বর আনুমানিক বেলা ২টায় তার স্বনামধন্য ব্যবসা প্রতিষ্ঠান “বন্ধন ফেব্রিক্স ” অবৈধভাবে দখলের চেষ্টা চালায় একদল স্থানীয় সন্ত্রাসী বাহিনী। সন্ত্রাসীদল জোর করে দোকান থেকে তার সকল কর্মচারীকে বের করে দেওয়ার চেষ্টা করে, অকথ্য ভাষায় আব্দুর রহমানকে গালাগালি করে এবং সবার সামনে হত্যার হুমকি প্রদান করে। এ সময় আব্দুর তার ব্যবসায়িক লেনদেনের জন্য ব্যাংকে ব্যস্ত ছিলেন।

আব্দুর আরো জানায়, আমি ব্র্যাক ব্যাংকে আমার পার্টিদেরকে টাকা প্রদানের জন্য যাই। এ সময় আমার প্রতিষ্ঠানের কর্মচারী রবিউল ফোন করে আমাকে জানায় যে, আমার দোকানে একদল সন্ত্রাসী অস্ত্র নিয়ে এসে তাদেরকে বের করে দেয়ার চেষ্টা করছে এবং আমাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করছে। আব্দুর তার ব্যাংকের কাজ স্থগিত করে শপিং মলে ফিরে আসেন। এসে তাদেরকে পায় নি। এ সময় দোকানের কর্মচারী ও উপস্থিত কয়েকজন জানায়, আমি যেন তাড়াতাড়ি দোকান ছেড়ে দেই, সন্ত্রাসীরা চলে যাওয়ার সময় হত্যার হুমকি দিয়ে গেছে। এ বিষয়ে সাথে সাথেই দোকান মালিক কমিটির কর্তৃপক্ষকে অবহিত করে। কিন্তু তারা কর্ণপাত করেননি এবং বিষয়টিকে সুরাহা করার কোন উদ্যোগ নেয়নি।

আব্দুর জানায়, গত এক বছর যাবৎ শপিং মলের মালিক জামাল খন্দকার বিভিন্ন রকম চাপ প্রয়োগ করছে এবং আমাকে মানসিক প্রশান্তিতে রেখেছেন। তিনি আমার বাবাকে নাকি ১ কোটি টাকা ধার দিয়েছেন। আমি তাকে বলেছি, অবশ্যই আপনি কোন সিকিউরিটি ছাড়া এই লেনদেন করেননি। টাকা লেনদেনের কোন প্রমাণ দেখালে আমি টাকা ফেরত বাধ্য থাকবো। কিন্তু তিনি কোনরকম প্রমাণ না দেখিয়ে অনৈতিক জোরপূর্বক টাকা দাবী করছেন। কয়েকবার দোকান বিক্রি করে তাকে টাকা পরিশোধ করার কথাও বলেছেন। বিভিন্ন সময় গালিগালাজ এবং হুমকি ধামকি দিচ্ছেন।

এ অভিযোগের বিষয়ে সংবাদপত্র অফিস থেকে জামাল খন্দকারের সাথে কথা বলতে চাইলে তিনি জানান, আমি এখন জরুরি কাজে ব্যস্ত আছি, আপনাদের সাথে কথা বলার মত সময় নেই। ‌

আব্দুর আরো জানায়, তার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করার মত কেউ নেই। কিংবা আমার পাশে এসে দাড়ানোর মত কাউকে পাচ্ছি না। আমার বাবাও মৃত্যুবরণ করেছে। তাই অনেক ভয়ে আর নিরাপত্তাহীনতায় দিন কাটাচ্ছি। আমি আইনশৃংখলা বাহিনীর কাছে লিখিত অভিযোগ নিয়ে গেছি। কিন্তু তারাও তা আমলে নেয়নি। বরং জামাল খন্দকারের সাথে আপোষ করার জন্য পরামর্শ দিয়ে উল্টো আমার বিরুদ্ধে ধর্মীয় বিষয়ে বানোয়াট অভিযোগ তুলছে।

এ বিষয়ে পুলিশের কাছে জানতে চাইলে তারা জানান, আমরা কোন কিছু বলতে আগ্রহী নই।

আব্দুর জানায়, এখন আমি এবং আমার পরিবার চরম মানসিক অশান্তিতে দিন যাপন করছি। আমি স্থানীয় জেলা, পুলিশ প্রশাসন ও রাজনৈতিক ব্যক্তিদের কাছে আমাদেরকে সহযোগিতা করার জন্য দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।

আর পড়তে পারেন