রবিবার, ১৪ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

৬ ফেব্রুয়ারি ঐক্যফ্রন্টের জাতীয় সংলাপ, থাকবে না জামায়াতে ইসলামী

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
জানুয়ারি ১৭, ২০১৯
news-image

ডেক্স রিপোর্টঃ

প্রধানমন্ত্রীর নির্বাচন পরবর্তী সংলাপের আগ্রহের বিষয়ে ঐক্যফ্রন্ট কি ভাবছে? সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে ঐক্যফ্রন্টের প্রধান সমন্বয়ক মন্টু বলেন, কোন প্রধানমন্ত্রীর সংলাপের কথা বলছেন? ৩০ ডিসেম্বেরতো কোন নির্বাচনই হয় নি। আমরাতো নির্বাচন প্রত্যাখ্যান করেছি।

আগামী ৬ ফেব্রুয়ারি জাতীয় সংলাপ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। যেসব রাজনৈতিক দল ৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচনে অংশ নিয়েছে তাদের নিয়ে এই সংলাপ আয়োজন করা হবে। এই সংলাপে জামায়াতে ইসলামী থাকবে না বলে মন্তব্য করেছেন, জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নেতা জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জেএসডি) সভাপতি আ স ম আবদুর রব।

বৃহস্পতিবার মতিঝিলে ঐক্যফ্রন্টের আহ্বায়ক ড. কামাল হোসেনের চেম্বারে ঐক্যফ্রন্টের স্টিয়ারিং কমিটির বৈঠক শেষে তিনি একথা বলেন।

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের স্টিয়ারিং কমিটির বৈঠকে বিএনপির কোন নেতা আসেননি। জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের দলগুলোর মধ্যে কোনো মনোমালিন্য আছে কি না? সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে জেএসডির সভাপতি ও ঐক্যফ্রন্টের নেতার আ স ম আব্দুর রব সাংবাদিকদের বলেন, ‘ঐক্যফ্রন্টে কোন মনোমালিন্য নেই।’

একই প্রশ্নের জবাবে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের প্রধান সমন্বয়ক মোস্তফা মোহসীন মন্টু বলেন, বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল আলমগীর অসুস্থ। তাই আসতে পারেননি।

কমিটির অন্য দুই সদস্য বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. আব্দুল মঈন খান ও গয়েস্বর চন্দ্র রায় আসেন নি কেন? জানতে চাইলে মন্টু বলেন, ‘তাদের আসার কথা ছিল। কিন্তু মামলা ও অন্যান্য কাজের চাপের কারণে তারা আসতে পারেননি।’

বৈঠকের বিষয়ে আ স ম রব বলেন, বৈঠকে আগামী ৬ ফেব্রুয়ারি জাতীয় সংলাপ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। যেসব রাজনৈতিক দল ৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচনে অংশ নিয়েছে তাদের নিয়ে এই সংলাপ আয়োজন করা হবে। তবে এতে জামায়াতে ইসলামী থাকবে না।

তিনি আরো বলেন, ৩০ ডিসেম্বর যে নির্বাচন হয়েছে তাতে জনগণের অংশগ্রহণ ছিলো না। এই নির্বাচন বাতিলের দাবিতে ঐক্যফ্রন্ট আন্দোলন চালিয়ে যাবে। আন্দোলনে সব মানুষের অংশগ্রহণের অংশ হিসেবে গণস্বাক্ষর সংগ্রহ, অবস্থান কর্মসূচি পালনের কথাও ভাবছে ঐক্যফ্রন্ট। আগামী পরশুদিন ড. কামাল হোসেন চিকিৎসার জন্য দেশের বাইরে যাবেন। তিনি ফিরলে পরবর্তীতে আরও কর্মসূচি দেয়া হবে।

প্রধানমন্ত্রীর নির্বাচন পরবর্তী সংলাপের আগ্রহের বিষয়ে ঐক্যফ্রন্ট কি ভাবছে? সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে ঐক্যফ্রন্টের প্রধান সমন্বয়ক মন্টু বলেন, কোন প্রধানমন্ত্রীর সংলাপের কথা বলছেন? ৩০ ডিসেম্বেরতো কোন নির্বাচনই হয় নি। আমরাতো নির্বাচন প্রত্যাখ্যান করেছি।

এর আগে বৃহস্পতিবার বিকেল পৌনে ৫ টায় স্টিয়ারিং কমিটির বৈঠক শুরু হয়। বৈঠকে গণফোরামের কার্যকরী সভাপতি ও ঐক্যফ্রন্ট নেতা সুব্রত চৌধুরী, নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না, জেএসডির সভাপতি আ স ম আব্দুর রব, বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী, সুলতান মনসুর চৌধুরীসহ দলের সিনিয়র নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

আর পড়তে পারেন