রবিবার, ৫ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ

তীব্র খাদ্য সংকটে রোহিঙ্গা শিশুরা

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
সেপ্টেম্বর ২০, ২০১৭
news-image

হালিম সৈকতঃ
মিয়ানমার থেকে আসা কুতুপালং,বালুখালি ও ঠ্যাংখালি রোহিঙ্গা ক্যাম্পে খাদ্য সংকটে রয়েছে প্রায় ২ লক্ষ রোহিঙ্গা শিশুর। প্রতিটি রোহিঙ্গা পরিবারে রয়েছে ৪ থেকে ৮ টি শিশু। সঠিকভাবে ত্রান বিতরন না হওয়ায় খাদ্যাভাবে রোহিঙ্গা শিশুরা রাস্তায় ঘুরে বেড়াচ্ছে।

প্রায় ১৫শত রোহিঙ্গা শিশু এসেছে বাবা-মা ছাড়া। বাবা মা ছাড়া আসা এসব রোহিঙ্গা শিশুর দেখ বাল করার কেউ নেই। কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্পে জালাল (১১) নামের এক রোহিঙ্গা শিশুর সাথে কথা বলে জানা গেছে, তাদের বাড়িতে আগুন দেওয়ার পর পরিবারের সবাই বিচ্ছিন্ন হয়ে যায় । বাবা মাকে খুঁজে না পেয়ে পরে পাশের বাড়ির এক চাচার সাথে দীর্ঘ পথ পারি দিয়ে বাংলাদেশে এসেছে। এই রোহিঙ্গা শিশুর এখনও তার পরিবারের সাথে কোন যোগাযোগ হয়নি। বালুখালি রোহিঙ্গা ক্যাম্পে সুলায়মান (৯) নামের এক রোহিঙ্গা শিশুর সাথে কথা বলে জানা গেছে রাখাইন রাজ্যের মংডুতে তাদের বাড়ি ছিল। মা- বাবা দুই জনই মিয়ানমার সেনাদের গুলিতে মারা গেছে। বড় ভাই তাকে নিয়ে নাফ নদী পার হয়ে তারপর পায়ে হেঁটে এসে বালুখালি ক্যাম্পে এসে আশ্রয় নিয়েছে। গত আট দিনে সামান্য কিছু খাবার পেয়েছে,যা তার চাহিদার তুলনায় অনেক কম। বেশির ভাগ রোহিঙ্গা পরিবারই দীর্ঘ পথ পারি দেওয়ার সময় অভুক্ত থাকতে হয়েছে । একই পরিবারে বেশি শিশু হওয়ায়, পাচ্ছে না সঠিক পরিমান খাদ্য। ক্যাম্প ছেড়ে সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত ত্রান বিতরনকারী গাড়ির পেছনে পেছনে ছুটছে রোহিঙ্গা শিশুরা। এতে পেছন থেকে আসা গাড়ির ধাক্কায় আহত হচ্ছে অনেকে। বড়দের সাথে পাল্লা দিয়ে ত্রাণ না পেয়ে কান্ত হয়ে তাঁবুতে ফিরছে রোহিঙ্গা শিশুরা। ত্রাণ দেওয়ার ক্ষেত্রে শিশুদের প্রাধান্য দেওয়া জরুরী হয়ে পড়েছে।

আর পড়তে পারেন