Tag Archives: রোজায় ডায়াবেটিস রোগীদের খাদ্যগ্রহণে যে সকল সচেতনতা জরুরি

রোজায় ডায়াবেটিস রোগীদের খাদ্যগ্রহণে যে সকল সচেতনতা জরুরি

 

লাইফস্টাইল ডেস্কঃ

রোজায় ডায়াবেটিস রোগীদের বিশেষ সতর্কতা অবলম্বন করা উচিত। রক্তের সুগার নিয়ন্ত্রণের জন্য এবং সুস্থ থাকার জন্য খাদ্যগ্রহণে সচেতনতা বিশেষভাবে জরুরি।

রোজার আগে ও পরে একজন ডায়াবেটিস রোগীর মোট ক্যালোরি গ্রহণ প্রায় একই থাকবে। চিকিৎসকের সঙ্গে পরামর্শ করে ঠিক করে নিতে হবে। ইফতারিতে অতিরিক্ত খাবার খাওয়া ঠিক না। এতে করে ইফতারের পরে সুগার বেড়ে যেতে পারে। নিয়মের মধ্যে ইফতার যত দ্রুত সম্ভব এবং সেহরি যত দেরিতে সম্ভব খাওয়ার চেষ্টা করতে হবে।

ইফতারি থেকে সেহরির মধ্যে প্রচুর পানি পান করতে হবে, যেটা পানিশূন্যতা প্রতিরোধ করবে। রাতের খাবার এবং সেহরি মিস করা যাবে না। ইফতারির পর ভাজাপোড়া খাবার পরিহার করা উচিত। অথবা খুবই সামান্য পরিমাণে যেমন ১-২টা বেগুনি, ১-২টা একটা আলুর চপ, ১-২ টুকরা পিঁয়াজু, অল্প একটু বুটভুনা খাওয়া যেতে পারে।

তবে অবশ্যই সেটা বাসায় তৈরি হতে হবে। ইফতারিতে একটা বড় খেজুর অথবা দুটা ছোট খেজুর, মিষ্টিজাতীয় ফল যেমন তরমুজ ছোট এক-দুই টুকরা খাওয়া যাবে, মিষ্টি নয় অথবা টকজাতীয় ফল ইচ্ছামতো খাওয়া যাবে। ফলের শরবত খাওয়া যাবে, তবে সেখানে কোনো চিনি যোগ করা যাবে না। ভাত কম এবং সেহরিতে শাকসবজি ও আঁশযুক্ত খাবার বেশি খেতে হবে।

ডাবের পানি খাওয়া যাবে। চা, কফি পরিহার করতে হবে।

সর্বোপরি ডায়েট ও ওষুধের নিয়ম ঠিক করার জন্য রোগীকে অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ গ্রহণ করতে হবে। অন্যথায় রোগী গুরুতর শারীরিক জটিলতার মধ্যে পড়ে যেতে পারে।

এর বাইরে কখনো কোনো অসুবিধা হলে তৎক্ষণাৎ চিকিৎসকের সঙ্গে যোগাযোগ করতে হবে।

লেখক: জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ, ফ্যামিলি মেডিসিন ফিজিসিয়ান, পরিচালক, সেন্টার ফর সাইকোট্রমাটোলজি এন্ড রিসার্চ।