বুধবার, ১৯শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

কুবির শিক্ষার্থীর বিরুদ্ধে ধর্ম অবমাননার অভিযোগ

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
মে ১৫, ২০২৪
news-image

 

চাঁদনী আক্তার , কুবি প্রতিনিধি:

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় (কুবি) পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগের ১৬ আবর্তনের শ্রী স্বপ্নীল মুখার্জি নামে এক শিক্ষার্থীর বিরুদ্ধে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে (ফেসবুক) ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করার অভিযোগে উঠেছে। বিষয়টি নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মাঝে সমালোচনা ও প্রতিবাদ করতে দেখা দিয়েছে।

কয়েকটি ফেসবুক পোস্ট থেকে জানা যায়, তার ফেসবুক আইডি থেকে গত ২০শে ফেব্রুয়ারি ছোটদের বর্ণমালা শেখার একটি বইয়ের একটি পৃষ্ঠার ছবি (একটি গিটারের ছবিসহ লিখা আছে গ-তে ‘গান বাজনা ভালো নই’) ছবি নিয়ে ক্যাপশন (ছবি তো গিটারের, গান কীভাবে আসলো? ছবি কই আকছে। এটা তো রং করছে। আতশবাজি ফোটানোর সাথে রং তামাশার সম্পর্ক কি?) দিয়ে পোস্ট করেন।

পোস্টের মন্তব্যে তিনি আসিফ আহমেদ নামে এক জন ব্যক্তিকে মেনশন করে বলেন, “হযরত যেখানেই যেত যুদ্ধ করতো। বদর না ফদর আরো কত কি নাম আছে। এলাকার মানুষগুলাকে একটা দিনও শান্তি দেয়নি।”

তিনি একই ব্যক্তিকে মেনশন করে আরো মন্তব্য করেন, “এ জন্যই মুসলিমদের সাথে কথা বলি না কারণ তাদের ব্রেইন নাই। আফগানিস্তান নিয়ে কথা বলতে বলতে হিন্দুধর্মের দেবতা টেনে নিয়ে এসে বলে টপিকের মাঝে থাকতে।”

তার এই মন্তব্যকে কেন্দ্র করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম (ফেসবুক) প্রতিবাদের ঝড় উঠেছে।
সেখানে রোমান সরকার নামে একজন লিখেছেন, ‘সে দীর্ঘদিন ধরে বহুবার মহানবী হযরত মুহাম্মদ (স.) ও ইসলাম ধর্ম নিয়ে কটূক্তি করে ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত দিয়ে আসছে। তার দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তি ও বহিষ্কার চাই।’

কামরুল ইসলাম নামে এক লিখেছেন, ‘দ্রুত ওর বিরুদ্ধে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা করা হোক!’

শামিম হোসেন নামে এক জন লিখেছেন, ‘এটা পুরান , অন্তত ১০০ বারের উপরে ওয়ার্নিং দেওয়া হইছে এবং প্রতিবারই খুব নত হয়ে মাফ চাইছে। আমাদের সিনিয়র, আমরা (১৫ ব্যাচ) এবং তার বর্তমান ব্যাচ (১৬) এর পোলাপান এরপর দুই চোখেও দেখতে পারেনা শুধু ফেসবুকে এসব কমেন্টের জন্য। কিন্তু এখন মনে হচ্ছে আর নয়, এটার বিরুদ্ধে এবার একটা ব্যবস্থা করতেই হবে। ‘

পিন্না মিম নামে একজন লিখেছেন, ‘অল্পবিদ্যা যে ভয়ংকর,সেইটা এই ছেলে মনে হয় ভুলে গেছে।কোনো কিছুর প্রেক্ষাপট না জেনেই এমন মন্তব্য কীভাবে করতে পারে এই ছেলে!’

আব্দুল আজিজ সজিব নামে এক জন লিখেছেন, ‘আইনি ব্যবস্থা নিতে হবে।তাকে তার সহপাঠী এবং সিনিয়ররা আগেও সতর্ক করেছিল, কিন্তু সে সোজা হয় নাই। এখন এই ঘটনা।’

এদিকে ধর্মীয় অবমাননার কারণে তাঁর সহপাঠীরা তাকে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করে বিশ্ববিদ্যালয়ের ফেসবুক গ্রুপে পোস্ট দিয়েছে।

তার বিরুদ্ধে ধর্ম অবমাননার অভিযোগ এনে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে রোভার স্কাউটস থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় রোভার স্কাউটস এর সিনিয়র রোভারমেট তোফাজ্জল হোসেন।

এছাড়াও বর্তমানে তিনি সনাতন বিদ্যার্থী সংসদ, বাংলাদেশ সংগঠনের কার্যনির্বাহী সংসদ ২০২৩-২৪ এর প্রচার সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছেন।

এ বিষয়ে প্রক্টর (ভারপ্রাপ্ত) কাজী ওমর সিদ্দিকী বলেন, আমি ফেসবুকে তার বিরুদ্ধে অভিযোগ দেখেছি এবং এটা যেহেতু ধর্মীয় ইস্যু আইন শৃঙ্খলা বাহিনীকে অবগত করে রেখেছি। যখন লিখিত অভিযোগ পাবো তখন তদন্ত করে পদক্ষেপ নেওয়া হয়। আমাদের কাছে এখনো লিখিত কোনো অভিযোগ আসেনি। তবে আমরা আগামীকাল প্রক্টোরিয়াল বডি বসবো। তার বিরুদ্ধে অভিযোগের তদন্ত করা হবে। যদি সত্যতা প্রমাণিত হয়, তাহলে সঠিক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এ বিষয়ে পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক ড. সজল চন্দ্র মজুমদার বলেন, এ ব্যাপারে আমি অবগত না। তবে একজন শিক্ষার্থী হিসেবে সে ধর্ম অবমাননা করতে পারে না। তবে অবমাননার অভিযোগ প্রমাণিত হলে বিভাগ থেকে কোনো পদক্ষেপ নেওয়া হয় না, প্রশাসন থেকে পদক্ষেপ নিবে।

সনাতন বিদ্যার্থী সংসদ কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে শাখার সাধারণ সম্পাদক শ্রী দ্বীপ চৌধুরী বলে, স্বপ্নীল খুবই নিন্দনীয় কাজ করেছে। একজন মহান ব্যক্তি নিয়ে সে এই ধরনের কথা বলতে পারে না। আমাদের সংগঠন মানুষকে নিন্দা করা সমর্থন করে না। তার বিরুদ্ধে যে অভিযোগ দেওয়া হয়েছে তা যদি সত্য প্রমাণিত হয় তাহলে আমাদের সংগঠনের কেন্দ্র থেকে ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন।

ধর্মীয় অবমাননা কারণ জানতে তাকে একাধিক বার মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি প্রতিবেদকের নম্বর ব্লক করে দেন।

আর পড়তে পারেন