মঙ্গলবার, ৩০শে নভেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

কুমিল্লা উত্তর যুবলীগে স্থান পেতে শতাধিক প্রার্থীর লবিং, সভাপতি পদে আলোচনায় সারওয়ার

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
নভেম্বর ৫, ২০২১
news-image

ইমতিয়াজ আহমেদ জিতু:
চলতি বছরের ২ অক্টোবর কুমিল্লা উত্তর জেলা শাখা কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করে বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ। বিলুপ্ত ঘোষণার পর নতুন কমিটির জন্য নেতাকর্মীদের কাছে জীবনবৃত্তান্ত আহ্বান করা হয়েছে। বিভিন্ন সূত্রমতে, যুবলীগের নতুন কমিটিতে স্থান পেতে প্রায় দেড় শতাধিক নেতাকর্মী কেন্দ্রে জীবনবৃত্তান্ত জমা দিয়েছেন। এর মধ্যে সভাপতি পদেই প্রার্থী রয়েছেন ৩৫ জন।

যুবলীগের নতুন কমিটিতে সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক পদে স্থান পেতে জোর লবিং করছে আগ্রহী প্রার্থীরা। সভাপতি পদে বেশ আলোচনায় রয়েছেন যুবলীগের বিলুপ্ত কমিটির সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক মোঃ সারওয়ার হোসেন বাবু । এছাড়া বিভিন্ন পদে আলোচনায় রয়েছেন কুমিল্লা উত্তর জেলা ছাত্র্রলীগের সভাপতি আবু কাউছার অনিক, সহ-সভাপতি আলামিন সরকার, কেন্দ্রীয় যুবলীগের সাবেক সদস্য আবুল কালাম আজাদ, দেবিদ্বার উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক আহ্বায়ক শামীম, এড. মো: এনামুল হাছান খান (রিপন), দেবিদ্বার উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্য্যান আবুল কালাম আজাদের ভাই মামুনুর রশীদ, দাউদকান্দি উপজেলা যুবলীগের সভাপতি আনোয়ার, হোমনা কলেজের সাবেক ভিপি লিটন, বাঙ্গরা থানা যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক আব্দুল্লাহ নজরুল প্রমুখ।

সভাপতি পদে আলোচনায় সারওয়ার হোসেন বাবু:
উত্তর জেলা যুবলীগের সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক সারওয়ার হোসেন বাবু নতুন কমিটির সভাপতি পদে প্রার্থী হিসেবে আলোচনায় রয়েছেন। সভাপতি কিংবা আহ্বায়ক পদে সারওয়ার হোসেন বাবুর বিকল্প আপাতত কেউ নেই বলে জানা গেছে। তিনি ২০০৯ থেকে ২০১৪ সাল পর্যন্ত কুমিল্লা উত্তর জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন । ২০১৫ সালে তিনি কুমিল্লা উত্তর জেলা যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক পদে দায়িত্ব পান। দায়িত্ব পালনকালে সাংগাঠনিক কার্যক্রমে তিনি বেশ সক্রিয় ছিলেন। বিশেষ করে করোনা মহামারিতে “হ্যালো যুবলীগ’’ গঠন করে প্রায় ১০ হাজার অসহায় ও কর্মহীন মানুষের ঘরে খাবার পৌছে দিয়েছেন। এছাড়া করোনা সুরক্ষাসামগ্রী নিয়মিত সরবরাহ করেছেন। দিয়েছেন অক্সিজেন সেবাও। সব মিলিয়ে করোনা সংকটময় সময়ে মানুষের পাশেই ছিলেন এই যুবলীগ নেতা।

তিনি জানান, আমার অতীত কার্যক্রম এবং দলের প্রতি আস্থা বিবেচনা করে কেন্দ্রীয় ও স্থানীয় নেতৃবৃন্দ যদি চায় তাহলে আমি এ পদ নিতে ইচ্ছে পোষণ করছি । আমি কোন সময় পদলোভী ছিলাম না। এখনো নেই, ভবিষ্যতেও থাকবো না। আমি হিংসা ও কলহমুক্ত পরিচ্ছন্ন রাজনীতি করতে পচ্ছন্দ করি। আমি ২০১৫ সাল হতে যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক পদে থেকে সততা ও নিষ্ঠার সাথে দায়িত্ব পালন করেছি। যদি আমি সভাপতি কিংবা আহ্বায়ক পদে দায়িত্ব পাই তাহলে হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙ্গালি, স্বাধীনতার মহান স্থপতি বঙ্গবন্ধুর আদর্শ অনুযায়ী যুবলীগকে পরিচালনা করবো।

যুবলীগের নতুন কমিটিতে আসতে পারেন কুমিল্লা উত্তর জেলা ছাত্র্রলীগের সভাপতি আবু কাউছার অনিক। যদিও অনিক এখনো ছাত্র্রলীগের দায়িত্ব পালন করছেন। হয়তো অচিরেই এ কমিটি ভেঙ্গে দেওয়া হতে পারে। সে হিসেবে অনিক যুবলীগে স্থান পেতে পারেন। করোনাকালে অসহায় মানুষের পাশে থেকে খাদ্য সহায়তা করেছেন এ নেতা। এ বিষয়ে আবু কাউছার অনিক বলেন, সাবেক ছাত্রনেতাদের সমন্বয়ে যুবলীগ গঠন করলে সাংগাঠনিক কার্যক্রম বেগবান হবে। আশা করি সততা ও নিষ্ঠার সাথে কাজ করা নেতাকর্মীরাই যুবলীগে স্থান পাবে।

যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক পদ পেতে আগ্রহী কুমিল্লা উত্তর জেলা ছাত্র্রলীগের সহ-সভাপতি আল আমিন সরকার। কুমিল্লা উত্তর জেলা আ’লীগের প্রবীণ রাজনীতিবিদ জাহাঙ্গীর আলম সরকারের নাতি আল আমিন ২০০৮ সালে ছাত্রলীগের রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত হন। ২০১৪ সালে জেলা ছাত্র্রলীগের সহ সভাপতি পদে অধিষ্ঠিত হন। এখনো দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন।

আল আমিন সরকার জানান, আমি দীর্ঘদিন ধরে ছাত্ররাজনীতি করছি। আমার পরিবারের সবাই আওয়ামীলীগের রাজনীতির সাথে জড়িত। আমি কুমিল্লা উত্তর জেলা শাখা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক পদপ্রার্থী। আশা করি কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ আমাকে উক্ত পদে সদয় বিবেচনা করবেন।

ডিসেম্বরেই ঘোষিত হতে পারে নতুন কমিটি :
চলতি বছরের ডিসেম্বর মাসের শুরুতেই ঘোষিত হতে পারে কুমিল্লা উত্তর জেলা যুবলীগের নতুন কমিটি। একটি সূত্র জানায়, পূর্ণাঙ্গ কমিটি না দিয়ে আহ্বায়ক কমিটি দেয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এক্ষেত্রে একজন আহ্বায়ক ও ৪/৫ জন যুগ্ম-আহ্বায়ক থাকতে পারেন।

আর পড়তে পারেন