সোমবার, ২৮শে নভেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

জমকালো আয়োজনে ডিপিএস এসটিএস শেফ মিনিস্টার এর গালা ইভেন্ট অনুষ্ঠিত

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
এপ্রিল ১, ২০২২
news-image

ডেস্ক রিপোর্ট:
ডিপিএস এসটিএস সিনিয়র সেকশন ক্যাম্পাসে বহুল প্রতীক্ষিত ম্যাগি নিবেদিত ডিপিএস এসটিএস শেফ মিনিস্টারের গালা রাউন্ড  বৃহস্পতিবার অনুষ্ঠিত হয়েছে। এ গালা রাউন্ডের কো-স্পন্সর এবং সহযোগী স্পন্সর ছিলো যথাক্রমে বেঙ্গল মিট ও ইউনিভার্সাল কলেজ বাংলাদেশ-মোনাশ কলেজ প্রোগ্রাম।

ডিপিএস এসটিএস শেফ মিনিস্টার অনুষ্ঠানটি মায়েদের জন্য এমনভাবে সাজানো হয়েছে যেখানে তারা অংশ নিয়ে রান্না সংক্রান্ত দক্ষতা প্রদর্শন করে। প্রতিযোগিতার অংশ হিসেবে ঢাকা শহরের শীর্ষস্থানীয় শেফদের নিয়ে মোট তিনটি কর্মশালার আয়োজন করা হয়, যেখানে অংশগ্রহণকারীদের কমপক্ষে একটি কর্মশালায় অংশগ্রহণকে বাধ্যতামূলক করা হয়। সর্বমোট ১ হাজার ৫শ’ জন মা এ কর্মশালায় নিবন্ধন করেন।

লে মেরিডিয়ান ঢাকার শেফ লেভেন্ত কারাহানের তত্ত্বাবধানে প্রথম কর্মশালাটি অনুষ্ঠিত হয়; গ্রেট কাবাব ফ্যাক্টরির শেফ জাহিদুল ইসলামের তত্ত্বাবধানে দ্বিতীয় কর্মশালাটির আয়োজন করা হয়; স্বনামধন্য শেফ, সার্টিফায়েড ফিটনেস ও নিউট্রিশন কোচ ও ফিট ফুড বাংলাদেশের ম্যানেজিং ডিরেক্টর সিমরা খানের তত্বাবধানে সরাসরি উপস্থিতিতে ডিপিএস এসটিএস সিনিয়র সেকশন ক্যাম্পাসে (ইন-পারসন)তৃতীয় কর্মশালাটি অনুষ্ঠিত হয় । এ কর্মশালা ও কয়েক রাউন্ড শেষে আজ বৃহস্পতিবার সরাসরি উপস্থিতিতে (ইন-পারসন) গালা রাউন্ড অনুষ্ঠিত হয়। অনেক মায়েরা গালা রাউন্ডে অংশগ্রহণের জন্য নিবন্ধন করেন; এর মধ্যে ৫০ জন মা এ গালা ইভেন্টে অংশ নেয়ার সুযোগ পায়। এ রাউন্ডে অংশ নিতে পেরে সবাই উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেন।
গালা ইভেন্টে বিজয়ীদের নামও ঘোষণা করা হয়। তামান্না রিফাত খান চ্যাম্পিয়ন মাদারের শিরোপা জিতে নেয়। পুরস্কার হিসেবে তার হাতে প্রফেশনাল সার্টিফিকেট ও ট্রফি তুলে দেয়া হয়। প্রাইজ মানি হিসেবে চ্যাম্পিয়ন মাদারকে এক লাখ টাকা দেয়া হয়। প্রতিযোগিতায় প্রথম ও দ্বিতীয় রানার্স-আপ নির্বাচিত হন যথাক্রমে তাসনিমা আক্তার এবং এহমেরিন রুবাবা। তাদের হাতে ট্রফি ও সনদ তুলে দেয়া হয়। অংশগ্রহণকারী সকল মায়েদের অনুষ্ঠানে অংশ নেয়ার জন্য সনদ ও পুরস্কার প্রদান করা হয়।

এ নিয়ে ডিপিএস এসটিএস স্কুল ঢাকার অধ্যক্ষ ড. শিভানন্দ সিএস বলেন, “এ প্রতিযোগিতার শুরু থেকেই আয়োজকরা অংশগ্রহণকারীদের কাছ থেকে যে স্বতঃস্ফূর্ত সাড়া পেয়েছে তাতে আমরা অভিভূত হয়েছি। নিজেদের ব্যস্ত সময় থেকে এ প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে তাদের রন্ধন শিল্পের নৈপুণ্য প্রদর্শনের বিষয়টি আমাদের উল্লসিত করেছে।”

অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ও এসটিএস গ্রুপের হায়ার এডুকেশনের সিইও ড. সন্দ্বীপ বলেন, “আজকের গালা ইভেন্টটি খুব সুন্দরভাবে অনুষ্ঠিত হয়েছে। প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়া মায়েদের একাগ্রতা দেখে আমি রোমাঞ্চিত। এ আয়োজনে অংশ নিয়ে অসাধারণ নৈপুণ্য দেখানোর জন্য আমি অংশগ্রহণকারী মায়েদের ধন্যবাদ জানাই। আগামী দিনগুলোতেও আমাদের উচ্চশিক্ষা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান ইউনিভার্সাল কলেজ বাংলাদেশ এ ধরনের উদ্ভাবনী অনুষ্ঠানের পৃষ্ঠপোষক হিসেবে বিভিন্ন ধরনের সহায়তা প্রদান করবে।”

ইভেন্টটি সবার সরাসরি (ইন-পারসন) অংশগ্রহণে অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে টাইটেল স্পন্সর ম্যাগি, কো-স্পন্সর বেঙ্গল মিট, গালা রাউন্ডের সহযোগী স্পন্সর ইউনিভার্সাল কলেজ বাংলাদেশ-মোনাশ কলেজ প্রোগ্রাম, সিইও-এসটিএস গ্রুপ, অধ্যক্ষ, উপাধক্ষ্য, সিনিয়র লিডারশিপ টিম সহ সম্মানিত অতিথিরা উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানে অংশ নেয়া সবাই আয়োজনটি দেখে এবং এ ধরনের ব্যতিক্রমী রান্নার প্রতিযোগিতায় মায়েদের অংশগ্রহণের বিষয়টিকে সাধুবাদ জানান।

আর পড়তে পারেন