Tag Archives: কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ

কুমিল্লার রাজগঞ্জে অটোরিকশার ধাক্কায় দিনমজুর নিহত

 

ডেস্ক রিপোর্টঃ

কুমিল্লা মহানগরীতে ব্যাটারিচালিত অটোরিকশার ধাক্কায় নবীর হোসেন (৩৮) নামে এক দিনমজুর নিহত হয়েছেন।

শনিবার বিকেলে মহানগরীর রাজগঞ্জ এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত নবীর হোসেন মুরাদনগর উপজেলার কোম্পানীগঞ্জ এলাকার বাসিন্দা।

কুমিল্লা কোতোয়ালি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আহমেদ সনজুর মোর্শেদ এ তথ্য নিশ্চিত জানান, বিকেল ৬টার দিকে নবীর বাড়ি ফেরার পথে রাস্তা পার হচ্ছিলেন। এ সময় একটি অটোরিকশা তাকে ধাক্কা দেয়। এতে তিনি গুরুতর আহত হন।

তিনি আরও জানান, স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ (কুমেক) হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানে নেওয়ার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এ ঘটনায় অটোরিকশার চালক হাবিব উল্লাহকে আটক করা হয়েছে। মরদেহ উদ্ধার করে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে বলেও জানান পুলিশের এ কর্মকর্তা।

বরুড়ায় উত্তেজিত ভাতিজার পুতার আঘাতে চাচী খুন

 

সাকিব আল হেলাল:

কুমিল্লার বরুড়া উপজেলার পয়েলগাছায় আপন ভাতিজার হাতে চাচী খুন। সোমবার(১৫ মার্চ) সকালে পারিবারিক কলহের জেরে পয়েলগাছা হাটপুকুরিয়া গ্রামে ভাতিজার পাথরের পুতার আঘাতে খুন হন আপন চাচী।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, সোমবার সকালে হাটপুকুরিয়া গ্রামের আব্দুল করিমের ছেলে শাহজাহান বাড়িতে এসে পারবারিক বিষয়ে চেচামেচি শুরু করে। একপর্যায়ে তার চাচী জমিলা বেগম(৫০) তাকে কিছু বিষয় জিজ্ঞাসা করলে শাহজাহান উত্তেজিত হয়ে ঘর থেকে পুতা এনে চাচীর মাথায় আঘাত করে। ঘটনাস্থলে ঐ নারীর মৃত্যু হয়। খুন হওয়া জমিলা বেগম একই গ্রামের তোরাব আলীর স্ত্রী।

পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে ঘাতক শাহজাহানকে আটক করে। লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ মর্গে পাঠানো হয়েছে।

এ বিষয়ে বরুড়া থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক(এসআই) আনিসুল ইসলাম বলেন, খবর পেয়ে আমি সঙ্গী নিয়ে ঘটনাস্থলে যাই। সেখান থেকে ঘাতককে আটক করি। লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য কুমেকে পাঠানো হয়েছে। এ বিষয়ে থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

দুই বছরের চুক্তিতে স্বাস্থ্য ডিজি হলেন কুমিল্লার ছেলে ডা. খুরশীদ আলম

ডেস্ক রিপোর্টঃ

স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক পদে দুই বছরের চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ পেলেন কুমিল্লার ছেলে অধ্যাপক ডা. আবুল বাশার মোহাম্মদ খুরশীদ আলম। বৃহস্পতিবার (২৪ ডিসেম্বর) রাষ্ট্রপতির আদেশক্রমে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের চুক্তি ও নিয়োগ শাখার উপসচিব মো. অলিউর রহমান স্বাক্ষরিত এ-সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি হয়।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, সরকারি কর্মচারী আইন, ২০১৮ এর ৪৯ ধারা অনুযায়ী অধ্যাপক ডা. আবুল বাশার মোহাম্মদ খুরশীদ আলম (কোড নম্বর ৩৮০১৩) মহাপরিচালক, স্বাস্থ্য অধিদফতরকে তার অবসরোত্তর ছুটি ও তদসংশ্লিষ্ট সুবিধা স্থগিতের শর্তে আগামী ৩১ ডিসেম্বর ২০২০ অথবা যোগদানের তারিখ থেকে পরবর্তী দুই বছরের মেয়াদে স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক পদে চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ প্রদান করা হলো।

এ চুক্তিভিত্তিক নিয়োগের শর্তাবলি অনুমোদিত চুক্তির দ্বারা নির্ধারিত হবে। জনস্বার্থে এ আদেশ জারি হয় বলে প্রজ্ঞাপনে উল্লেখ করা হয়।

এর আগে গত ২৩ জুলাই দশম বিসিএসের দক্ষ কর্মকর্তা অধ্যাপক ডা. আবুল বাশার মোহাম্মদ খুরশীদ আলম স্বাস্থ্য অধিদফতরের ২৭তম মহাপরিচালক হিসেবে নিযুক্ত হন।

উল্লেখ্য, খুরশীদ আলম স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে এমবিবিএস করে বিসিএসের মাধ্যমে ১৯৮৪ সালে সরকারি চাকরিতে যোগ দেন। ঢাকা মেডিকেল কলেজের সার্জারি বিভাগের চেয়ারম্যান হওয়ার আগে তিনি কুমিল্লা মেডিকেলের সার্জারি বিভাগের প্রধান ছিলেন। খুরশীদ আলম কিছুদিন বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজেও কর্মরত ছিলেন। তিনি সার্জারিতে এফসিপিএস ও এমএস ডিগ্রি অর্জন করেছেন। তার বাড়ি কুমিল্লার চান্দিনায়।

অধ্যাপক ডা. আবুল বাশার মোহাম্মদ খুরশীদ আলম ১৯৬১ সালের ৩১ ডিসেম্বর জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ২২ নভেম্বর ১৯৮৪ ইন সার্ভিস ট্রেনিংয়ের আওতায় সহকারী সার্জন হিসেবে স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজে যোগদান করেন। ১৯৮৬ সালের ৪ অক্টোবর মহেশখালী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে সহকারী সার্জন হিসেবে যোগদান করেন। পরবর্তীতে মোহাম্মদপুর ইউনিয়ন সাব সেন্টার ও ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে সহকারী সার্জন হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

এছাড়াও তিনি সহকারী সার্জন হিসেবে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়, সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ এবং জাতীয় অর্থোপেডিক হাসপাতাল ও পুনর্বাসন প্রতিষ্ঠানে দায়িত্ব পালন করেন। চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের সার্জারি বিভাগের সহকারী রেজিস্ট্রার হিসেবেও তিনি কৃতিত্বের সাথে চিকিৎসাকার্য পরিচালনা করেন।

সার্জারি বিষয়ের জুনিয়র কনাসলট্যান্ট হিসেবে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট হাসপাতালে দায়িত্ব পালন করে সিনিয়র কনসালট্যান্ট হিসেবে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজে যোগদান করেন। সহযোগী অধ্যাপক হিসেবে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ ও শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজে দায়িত্ব পালন করে এই কৃতি শিক্ষক ও চিকিৎসা কর্মকর্তা অধ্যাপক হিসেবে ২০১৬ সালে ঢাকা মেডিকেল কলেজে যোগদান করেন।

সংস্কৃতি অঙ্গনেও রয়েছে তার অবাধবিচরণ। অধ্যাপক ডা. খুরশীদ আলম বাংলাদেশ বেতারের একজন তালিকাভুক্ত রবীন্দ্রসঙ্গীত শিল্পী। প্রয়াত সঙ্গীতজ্ঞ ওয়াহিদুল হকের প্রিয় শিষ্যদের একজন তিনি। এককালে ওয়াহিদুল হকের ছায়াসঙ্গী ছিলেন অধ্যাপক ডা. খুরশীদ আলম। এছাড়া জাতীয় রবীন্দ্রসঙ্গীত সম্মিলন পরিষদ কুমিল্লা শাখার প্রশিক্ষক ছিলেন তিনি। পরে সভাপতির দায়িত্বও পালন করেছেন।

কুমেক হাসপাতালে অক্সিজেনের অভাবে অস্ত্রোপচার বন্ধ, বন্ধ হওয়া অক্সিজেন চালু করতে লাগবে ৬৯ লাখ টাকা

মনির হোসেন:
কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে অক্সিজেন না থাকায় সার্জারি, গাইনি ও অর্থোপেডিকস বিভাগে অস্ত্রোপচার চিকিৎসাসেবা ব্যাহত হচ্ছে। গত ৩০ জানুয়ারি থেকে অক্সিজেন পাইপ বিকল হলে এ সমস্যা দেখা দেয়। সেন্ট্রাল অক্সিজেন চালু করতে ৬৯ লাখ টাকা লাগবে বলে হাসপাতাল সূত্রে জানা য়ায়।

জানা যায়,১১ দিন সেন্ট্রাল অক্সিজেন বন্ধ থাকায় ছোট অক্সিজেন বোতল কিনে হাসপাতালের বিভিন্ন ওটিতে অপারেশনের কাজ করা হয়। গত ৭ জানুয়ারি একটি ছোট অস্ত্রোপচারে অক্সিজেনের কারনে এক জন রোগী মৃত্যু হওয়ার অভিযোগ পাওয়া যায়। শনিবার নারায়ণগঞ্জ থেকে অক্সিজেন না আসায় হাসপাতালে সার্জারি, গাইনি ও অর্থোপেডিকস বিভাগে অস্ত্রোপচার চিকিৎসাসেবা বন্ধ হয়ে যায়। এ কারণে জরুরি চিকিৎসা নিতে আসা অনেক রোগীকে ফিরে যেতে হয়েছে। অনেকে অস্ত্রোপচারের অপেক্ষায় হাসপাতালের শয্যায় দিন গুনছে।

এদিকে নাম প্রকাশ না করার শর্তে কয়েকজন রোগী বলেন, শ্বাসকষ্ট হচ্ছে কিন্তু অক্সিজেন নেই। বাধ্য হয়ে স্বজনকে শহরের বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যাচ্ছেন। সরকারি হাসপাতালের এমন অবস্থা আগে কখনো দেখেননি। কুমিল্ল মেডিকেল কলেজের সার্জারি বিভাগের কয়েকজন ডাক্তার বলেন, অক্সিজেনের অভাবে কোনো অস্ত্রোপচার করা যাচ্ছে না। এদিকে কাজী ফেরদৌস হক নামে হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসা রোগী বলেন কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালটি অসুস্থ হয়ে গেছে,মনে হচ্ছে হাসপাতালের চিকিৎসা করাতে হবে। এখানে প্রয়োজনীয় লোকবলের যেমন ঘাটতি আছে, তেমনি অতি জরুরি যন্ত্রপাতিও অকেজো হয়ে পড়ে আছে। কোনো কোনোটি চলছে ধুঁকে ধুঁকে। হাসপাতাল ঘুরে এবং সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, মেডিকেল কলেজের নতুন ভবনের মাটির ভু গর্ভে  পি কাস্ট পাইল ড্রাইভ করার সময় অক্সিজেন পাইপ বিকল হয়ে গেলে গত ৩০ জানুয়ারি সন্ধ্যা থেকে চিকিৎসাসেবা ব্যাহত হচ্ছে।

উল্লেখ্য, গত ৩০ জানুয়ারি কুমিল্লা মেডিকেল কলেজের নতুন ভবনের মাটির ভু গর্ভে  পি কাস্ট পাইল ড্রাইভ করার সময় অক্সিজেন পাইপ বিকল হয়ে যায়।